কালো মেঘের বুকের দানাবাঁধা কষ্টগুলো
ব্যথায় টুকরো টুকরো হয়ে ঝরে পড়ে
পৃথিবীর বুকে রাগিনীর সুর তুলে,
মরা নদী খাল বিল ফিরে পায় হারানো যৌবন
সবুজ বন বনানী হয়ে ওঠে লাবন্যময়ী
ঝলসে যাওয়া রূপসী বাঙলা ফিরে পায় তার রূপ!


হে বৃষ্টি, তুমি সুন্দরী সুন্দরীতমা
আমার পোড়া চোখে অন্যরকম!


বাস্তুহারা মানুষের কাঁপন ধরা শরীর,
ছেঁড়া শাড়িতে বৃষ্টিভেজা জবুথবু
নারীর বিষণ্ণ ক্লান্ত মু্‌খ,
বৃষ্টিভেজা উদাম শিশুর ফ্যাকাশে কচিমু্‌খ,
খড়ের চালার কোণে গামছায় ঢাকা
মজুরের কাতর চাহনি
এই সব ভয়াবহ আরতি
বিদীর্ণ করে আমার হৃদয়!


বুকের ভিতর প্রজ্বলিত শিখা
নির্বাপিত হয় কী বৃষ্টির ছোঁয়ায়!
তবুও বৃষ্টিকে ভালোবাসি
এসো হে বৃষ্টি, এসো এ ধরায়!


শুধু এইটুকু মিনতি রেখ প্রিয়তমা বৃষ্টি,
নদীর দু’কূল ছেপে বান হয়ে এসো না!