(গত কাল প্রকাশিত আমার, "ভিখ", কবিতাটির আমার করা ইংরেজি অনুবাদ
"I would like to beg”


They are ignorant and playing with fire
They have lost the way
They think them as procurator
And no hopes are there
They are falling into the
Bay.  
The heart of them has become invasive
And burning today. They are jealous, crude
In the era of kali; they are feeling the
Negative in their
Way.
My heart and soul has become depressed
To think of these blind
The turbulent atmosphere overwhelmed  
My soul and the
Mind.
They are terrible and very much violent
They are as wild as hyena.
Destruction is their passion and
Deterioration is their dream and
Destination.
Oh my lord, please lit their heart
With your glorious divinity.
They are empty in humanity;
I would like to beg to you
Please, please, please
Start your kind
Activity.


(মুল লেখাটি)
“ভিখ”


আগুন নিয়ে ফাগুন খেলা খেয়া পারে মাঝি
দিক নিশানা হারিয়ে হরি, হদ্দ গাঁ'য়ের
কাজি।
অগ্নি মুখেই এগিয়ে চলে হতোদ্যমের দিশা
বিহঙ্গরেরই নেশার ঘোরে, হানছে তমা-
নিশা।
আজ কলিতে মগ্ন রবে আকাশ ওঠে জ্বলে
হায় রে বিধি! হরণ কেন, যা গেলো
যাচ্ছলে।
ভগ্ন হৃদে ভাবতে পরাণ অন্ধ তমার গান
বিঁধছে হৃদে গরল ধরা অশান্তির ওই
বান।
স্তব্ধ তারই নিকস কালো জ্বলছে রে দাও দাও
সৃষ্টি নাশে হায়না বেশে, দগদগে ঐ
ঘাও।
দীপ্তি জোয়ার দাও না প্রভু জ্বালাও হৃদয় দীপ
খোকলা প্রাণে দাও না জ্যোতি মাগছি আমি
ভিখ।


“প্রলাপ”, (সনেট কবিতা)


প্রেম সমানে সমানে হওয়াই ভাল
আমি মান আর বলে খানিকটা ছোট
লাব্যন্য তোমার অতি রঙে আমি কালো
সাধারণ মধ্যবৃত্ত ধনে নিচু কত!
চাহিদা তোমার অতি কী করিব গতি
ভালোবাসা কালোবাসা হলে পরিনয়
ভেবে শুনে দেখে নিও হবে নাতো ক্ষতি!
হেন রূপে ভাবি আমি, চোখে ধারা বয়।


ফিরে যাও সখী আজি খুঁজে নাও দ্বার
আছে যার বল বাহু তোহে রাখিবার
বুকে ব্যথা লাগে অতি দুরে ফেলিবার
অনিবার বয়ে যাব ব্যথা অতিশয়।


প্রেম কী সে মাগে ধন বসে ভাবি হায়!
হেরি মোর প্রলাপেতে, সখী দূরে যায়।


“মাংস” , (শিশুতোষ লেখা)


প্রেমের স্মৃতি নষ্ট নীড়ে ফেলতে জুদি চাও
আলির কাছে দৌড়ে ভেগে, অসুদ
নিয়ে নাও।
হরেক রকম প্রেমের ব্যথার অসুদ আছে তার
বিচ্ছেদেও কাঁদবে না গো, হাসবে
বারে বার।
চিটিং জুদি করেই প্রেমিক দু ফোঁটা দেয় চোনা
চিচিং ফাক বলতে হবেই, না বলেই
পারবে না।
টাককা প্রেম ভাসেই জুদি হরপা বানেতেই
গোবড় লেপে তোমার মুখে, সাড়বে
নিমেষেই।
ঘর ভাংলে ঘোড়ার দুধে দু চাঁমুচ ওই কাদা
তার সাথে দেয় ঘোড়া নিমের, বেশ
কষিয়ে রাঁধা।
বউ পালালে কষিয়ে মারে জ্যান্ত গরুর লাথি
পলক তোমার পরবে না ভাই, ভাঙবে
পিঠে লাঠি।
দু চার দিনেই ককিয়ে উঠে বিয়ে তোমার হয়েই যাবে
এমন কিছুই ফিস নেয় না, দু চার কেজি
মাংস খাবে।


“ন্যাশার ঘোরে”, (লিমেরিক)


ন্যাশার ঘোরে দুলছি ওরে খুড়োর কলের গান
হাসতে চাই পারছি না তো, চোখ যে টান টান।
কলির কালি খুড়োর গলি
বুক ফুলিয়ে তাই তো চলি,
এ ডাল হতে ও ডালেতে, যখন; যে পার্টি দেয় শাণ।


“ভাবনা”


একটি শান্ত শিষ্ট লেজ বিশিষ্ট ভদ্রলোক
কখন কাকে কী জে বলি, কাকে কখন করিই ভুক।
দন্ত আমার শাণ বাঁধানো
কন্ঠ যে দা হারায় শুনো,
সামনে কে যে ভুলেই যে যাই, তাও ভাবি নে; ভাবনা টুক!


হেই কত্তা কে দিল ওই; মধু তোমার গলে
হিস সি সি, আস্তে কও; শুনলে দিবে
শূলে।
কইব না বাত কাউরে বলি কশম মাতা কী
কোন উনানে জ্বাল দিলে গা, বানায় দিলে ঘি!


“বৌ”, (শিশুতোষ লেখা)


হায় রে হায়! পরাণ গেল ভরিয়া,
দেইখ্যা দিল দরিয়া;
গলায় দড়ি দিলই জুদি
বন্ধ ঘরত
মরিয়া


হায় রে টুডু আয় রে হেথা
চাকুম চুকুম দৌড়ে
জা লইয়া তোর প্রেমিরে
এহন তর বৌ
রে।