একটি ভগ্ন দালান, ক্ষয়িষ্ণু আস্তর
নগ্ন ইটের গায়ে স্যাঁতস্যাঁতে শাওলা
ব্যাঙের ছাতা, পোড়া মাটির স্তুপ
দেয়ালের ফাঁক গলে বট বৃক্ষ
ঝোপঝাড়, সাপের মড়া চামড়া
ঝিরিঝিরি বাতাসে দোলছে
কালের স্বাক্ষী হয়ে বিষণ্ণ নীলগাছ!
নীলের মনে নীল বেদনার রঙ!
এই কুঠি একদিন ছিল নতৃকীর
ছন্দ, সুর, সুরার রঙমহল
লাটসাহেব, নীলকর, লাস্যময়ী
হাসির ফোয়ারা,  পিয়ানোর সুর!
চাবুকের সপাংসপাং ধ্বনি বাজিছে
নালায়েক,  গোঁয়ার প্রজাদের গায়
আর্ত চিৎকার ভেসে আসে তরুণীর
অন্দর মহলের অন্তঃপুর হতে!
ইংরাজ সাহেব, সাদা চামড়া
মেম সাহেব, পাতলা গড়ন, চিকন ঠোঁট
দোলিছে আনন্দে, নীলের নীল রঙে!
হুজুর!  দয়া করুন, রহম করুন অধমে
যেটুকু জমি আছে নিলে যে প্রাণ যায়!
ধপ করে জ্বলে ইংরাজের নষ্ট চোখ
সাদা চামড়ার ভাজে জেগে কদর্য রক্ত
চুপ!  চুপ!  স্লেছ, যবন, উল্লুক, হারামির দল
এ তল্লাট ভরে যাবে নীল গাছে, নীল রঙে!
সপাংসপাং চাবুক চলিছে, অন্তঃপুরে পাশবিকতা
পিয়ানোর সুর, নতৃকীর নৃত্য,  সুর সুরার মাদকতা
বিস্তৃত প্রাঙ্গনে স্বল্প হাওয়ায় দোলছে নীলের পাতা!