যুদ্ধ আমি করিনি জানি
অস্ত্রও হাতে ধরিনি,
সেই পিশাচদের রক্ত চোষা
নিজের চোখেও দেখিনি।
পড়েছি শুধু বই-কেতাবে
ঐ পশুদের কথা,
যাদের সার্চলাইট লিখেছে
বীর শহিদের গাঁথা।


ওদের করা গণহত্যা আর
নারীদের অপমান,
তা শুনে চোখে জল চলে আসে
ভয়ে কেঁপে ওঠে জান।
বীর বাঙালি করেছে দমন
দিয়েছে ওদের তাড়িয়ে,
তবুও কী দেশ পিশাচমুক্ত
হতে আজও পেরেছে?


আজও এদেশের খবরেতে রোজ
শুনি হত্যার কথা,
কত কালো হাতে ধর্ষিত হওয়া
কত নারীদের ব্যাথা।
আজও শুনি কত মায়ের কণ্ঠে
গগনবিদারী চিৎকার,
কত বোনের ভাই হারা আর
ইজ্জত হারা হাহাকার।


তাহলে কী ওরা এসেছে ফিরে?
মনে যে জাগে শঙ্কা,
ওদের বুটের আওয়াজ কী আবার
যাচ্ছে কোথাও শোনা?
পিশাচরা আর ফেরেনি তবে
রেখে গেছে কিছু ভৃত্য,
এদেশের লোক, এদেশের ক্ষতি
করে চলেছে নিত্য।


এরাও পিশাচ, নরপিশাচ
আরো ভয়ঙ্কর,
জাগো বাঙালি, সাবধান হও
হও তুমি তৎপর।
হে মুজিব তুমি জেগে ওঠো
নেতৃত্ব প্রয়োজন,
বাঙালি সবে প্রতিবাদী হও
পিশাচ করো দমন।


নরাধমদের চরম শিক্ষা
দাও হে বীর বাঙালি,
অশান্তি করো দেশ থেকে দূর
চলো শান্তি ফিরিয়ে আনি।
একসাথে চলো, একসাথে বলো
সজাগ মোরা থাকবোই,
পিশাচদের শাস্তি দিয়ে
সোনার বাংলা গড়বোই।