আমি কোথায় এমন পাই আমি কোথায় খুঁজে বেড়াই?
সপ্তাকাশ ভরা তারা বাসন্তী রাঙা জ্যোৎস্না ধারা
যমুনার ওই ঝিলিক কাড়া তরঙ্গে মন আত্মহারা।
সিক্ত চোখের বাস্প পানি কোথায় গেলে শুকায় জানি!
মুকুল ছোঁয়া বাতাস আনি জুড়াই তপ্ত হৃদয়খানি।
দুপুর ঝরা আরাম রোদে শিমুল পলাশ কুঁড়াই।।

বাঁশের ঝারে শালিক নাচে ঝিঁঝিঁপোকা চেঁচায় পাছে
ছন্নছাড়া হৃদয় যাচে সন্ধ্যাতারা আয় না কাছে।
কোকিল অমন করুন সুরে ডাকবে কোথায় কোন সে দূরে?
উষ্ণ -শীতল পরশ ভোরে ঝরবে শিশির হৃদয় জুড়ে।
ফাগুন এসে বলবে হেসে দুঃখ আমি ভুলাই।।

আমার বাস্তবতার বদ্ধঘরে বাড়ছে আঁধার চক্রহারে
জড়িয়ে আপন কণ্ঠহারে বাঁধতে আমি চাইগো তারে।
সীমান্তের ওই আকাশ শেষে স্বপ্ন আমার যায়রে ভেসে
সর্বহারা প্রাণটি ঘেঁষে থাকবে চির তরুণ বেশে
ঘাসফুলের ওই গন্ধ আমি দুহাত ভরে ছড়াই।।