নিঝঝুম অন্ধকারে শুয়ে শুনশান মাঠ
ক্লান্ত পথিক পেরিয়ে গেছে আগেই...
এখন শুধুই জোনাকির খেলাঘর।


বিশুদ্ধ নীরবতা ভেঙে ফেলে অচিন পাখি
উদাসীন হাওয়ায় ভেসে যায় মেঘের কলরব
ঝাউবনে উঁকি দেয় তৃতীয়ার চাঁদ –


লজ্জাবতী গাছের মতো যেন এক স্পর্শেই
ঘুমিয়ে আছে শুনশান বিরহী মাঠ


চারিদিকে উঠছে বিলাসী বহুতল
প্রমোটারের লালসার তীক্ষ্ণ নজর –


কতো দিন খেলবে শৈশব?  জানো না!
হয়তো একদিন তোমার বুকে
লেখা হবে কংক্রিটের ইতিহাস।

       ********