কিছু লোক,হারিয়েই যায় সারা জীবন।


চেনা মুখ,চেনা ঘর,চেনা স্পর্শ খুঁজে ফিরে
শেষে হেরে যায়।
ফেলে আসা সরষের ক্ষেত,ফুল-বেলা,
তপ্ত প্রহরের ছায়াতল
উথলানো দুধের মতন বুকের ভিতরে নিয়ে
ছুটে যায় সমস্ত সকাল থেকে সাঁঝে,
মাঠে,ঘাটে, মানুষের মাঝে।
এই ক্লেদ,অবিশ্বাসে ভরা রঙ-ভূমি
লোভাতুর মেলা, মোহময় সাপুড়িয়া বাঁশি
নাগরদোলা...
তার মাঝে সে কেবল নিখোঁজ ;
ভালোবাসাবিহীন দিনের যাপনে তার ক্ষয়।
কখনো একলা দাঁড়ালে,এখনো সে শোনে
নদীটির কুলু কুলু, একটানা বয়ে চলা ধ্বনি,
নদীর কি মনে পড়ে ঘর?


ঠিকানা হারিয়ে নিখোঁজ মানুষ
অবশেষে পৃথিবীকে আপনার ঘর ভেবে
শুরু করে দুদিনের বসবাস।