সকাল হতে ভাবছি বসে
                              মাতৃদিবস আজি
কিভাবে মাকে খুশি করি?
                             কি উপহার সাজি?
কিভাবে মেটাই মায়ের
                             অমৃত সুধার ঋণ?
কিভাবে জানাই তাকে,
                       তার দয়ায় কাটে দিন?


ছোট থেকে সাথ দিয়েছো
                          মোর সকল খেলায়
তোমার গায়ের গন্ধ যে মা
                          সকল গন্ধ ভোলায়
তোমার শিক্ষা পাথেয় করে
                          চলি যে সদাই পথে
আলোর পানে লও তুমি,
                    সারথি মোর জীবনরথে ।


মা যে আমার করুণাময়ী,
                        অনন্ত করুণার ধারা
মায়ের স্নিগ্ধ আঁচল তলে
                          হই আমি দিশাহারা
মায়ের মুখের কোমল হাসি
                        মেটায় সকল জ্বালা
মায়ের হাত মোর কাঁধের উপর
                             যেন বিজয়মালা ।


মা যে আমার অন্নপূর্ণা,
                       হাতের ছোঁয়ায় জাদু
মায়ের রান্না খাবারেই
                         ভরে পেট মোর শুধু
মন সদাই ব্যাকুল থাকে
                     না পেলে তোমার দেখা
আজও তুমি না থাকলে বাড়ি,
                           বাড়ি লাগে ফাঁকা ।


সুখ দুখ সব তোমারি সাথে
                                করে নেই ভাগ
আমার শত জ্বালাতনেও
                       কর না কোনোই রাগ
আমার সকল কষ্ট কিভাবে
                               বুঝে নাও তুমি?
মা যে তুমি জগদ্ধাত্রী,
                            তুমি যে অন্তর্যামী ।


এত ক্ষন ভাবার পরে
                     বুঝলেম পাগল আমি
মানিক রত্ন মা যে আমার
                            সকল হতে দামি
আজকে আমি যা কিছু সব
                           তোমার দয়ায় মা
জনম জনমে আমারি মা হও
                          আর কিছু চাই না ।