একদিন আমারও স্বপ্ন ছিল,রং তুলিতে থাকবো,
জীবনের ইতি কথা গুলো,ক্যাবাসে আঁকবো।
তখন সময় ছিল,ছিলোনা কোনো  টাকা,
এখন টাকা আছে,অথচ সময় নেই ফাঁকা।
আমি শিল্পী হতে চাইনি,চেয়েছি চিত্রের প্রেমী,
আমার ভালোবাসার মাঝেই,আমার খেপামি।
আজ স্বপ্নে রং গুলো,ফুটিয়ে তোলে পুরানো দিন,
সাদা কাগজ বলে,মিটিয়েনে ভালোবাসার ঋণ।
আমার হাতে আঁকা ছবিতে,আকাশ হতো নীল
রেখার টানে ছেলেবেলায়,ভেঙে যেতো পেনসিল।
এইচ বি,টুবি,সিক্সবি,পেনসিলের,ভাঙা কার্বন,
রাবারের কালো হয়ে যাওয়া,ভেঙেছে আমার মন।
কাগজ গুলো ভিজতো তখন,দিতে গিয়ে রং,
কি আঁকতে কি আঁকতাম,যতো অং বং চং।
তারই মাঝে আঁকার আনন্দে,দিনটা যেতো ভালো,
শনিবার বা রবিবার হলেই,আঁকার স্কুলে চলো।
কঞ্জল বাবু আমার শিক্ষক,মনে আছে এখনো,
ব্যস্ত জীবনে হারিয়ে গেছি,তবু ভুলিনি কখনো।
সাদা ফ্যাব্রিক রং যেন,মনে করে দেয় আনপনা
আঁকার খাতায়,থাকতো আমার,সেদিনের কল্পনা।
শিখেছি অনেক কিছু সেথা,শুধু ছবি আঁকা নয়,
ছবির মাঝে ছবি গুলো,জীবনের কত কথা কয়।
আবেগ,দুঃখ,কষ্ট,ভালোবাসা,সব মেশানো তাতে,
মিলন মেলায়,পূর্ণেন্দু মেলা,থাকে সবার সাথে।
প্রতিযোগিতা শুধু,প্রতিযোগিতা ছিল না তখন,
পাস বা ফেল কি এসে যায়,খুশিতে ছিল মন।
পুরানো সেই ছবির অ্যালবাম,স্মৃতিতে গাঁথা,
একের পর এক,ছবি গুলো,দিয়ে যায় ব্যাথা।
অবনীন্দ্রনাথ,গনেন পাইন,পরিতোষ সেনের ছবি,
ভালোবাসি আমি,খুবই ভালো যা এঁকে ছিল রবি।
যোগেন চৌধুরি,রামানন্দের চিত্রে,থাকে সদা মন,
আ্যঞ্জেলো,পলগঁগ,ভিঞ্চিরা এেঁকেছে যখন।
তখন যে সব ভাবনা তাদের,রঙে ছিল আঁকা,
মনের আয়নাতেও এখনো,যায়না কভু দেখা।
তাই আজও মাঝে মাঝে,রঙে ঢেলে ফেলি মন,
পেনসিলটা হাতে তুলে নিয়ে,ভাবি যখন তখন।