বিজয়ের প্রত্যাশা
   ✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য


আলোকিত-উন্নত-মুক্ত নয় আজ দেশ,
রাক্ষস প্রবেশে হয়েছে মায়াবী অরণ্য!
মায়ের রোগগ্রস্ত আত্মা চিৎকার করছে,
সন্তানেরা এখন ক্ষুধার্ত-পীড়িত-নগ্ন।
            মৃত্যু ভয় চারিদিকে ছড়িয়ে পড়েছে,
            পলায়ন করে আর বাঁচবো কতদিন?
            চতুর্দিকে কেবল লাশের স্তূপ দেখি,
            রক্তে ভূমি হয়ে আছে রঙিন।


জমি-জমা সব করেছে ওরা দখল,
করছে খুন-খাচ্ছে রক্ত-জনশূন্য দেশ!
শত সুদৃশ্য নারীর বক্ষ করেছে ক্ষত,
করেছে ব্যবহার টেনেছে মাথার কেশ।
            তবু কোন প্রতিবাদ-আন্দোলন নেই,
             নিজ জীবন রক্ষায় থাকে পালিয়ে!
             প্রতিমুহূর্তে হচ্ছে নির্যাতনের শিকার,
             কিন্তু অন্তরে জাগে না বিদ্রোহ-ভয়ে।


এখন রোজ-রজনী সন্ধ্যা হলে,
জনহীন নগরী হয়ে যায় পথ-ঘাট!
আর্তনাদ অন্তরে শুধু করে কান্না,
কোথাও নেই বাজার দোকান পাট।
            নেই আগের মত জনতার তীব্র স্রোত,
            ক্ষুধা-দরিদ্রতা-ভয় শুধু অন্তরে !
            প্রদীপের আলোয় ঝলমল করে না গৃহ,
            থেমে গেছে পূজা-শঙ্খ ধ্বনি চিরতরে।


আজ কোন যানজট নেই-শুধু নিস্তব্ধতা,
ভেঙে দিয়েছে সকল বাস-ট্রাক-রিকসা!
চলছে বোমা-বন্দুকের গুলি বর্ষণ,
আগুনে সব পুড়ে করছে দেশ খাঁ-খাঁ।
            কেবল আছে হিংস্র কুকুরের দল,
            যারা পেয়েছে স্বাদ  রক্ত মাংসে!
            নিরীহ জনতাকে সম্মুখে দেখলে,
            হত্যা করছে বিনা দোষে।


কিন্তু আর বেশিদিন এভাবে চলবে না,
যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে বীর যোদ্ধারা!
অন্যায়ের ঘর্ষণে জ্বলেছে যে আগুন,
তার উত্তপ্ত রক্তিম শিখায় ক্ষয় হবি তোরা।
           তোদের রক্ত ধারায় স্নাত হবে জন্মভূমি,
           পিপাসা-পিঁড়া হৃদয় থেকে হবে দূরীভূত!
           বিজয়ের প্রত্যাশা এখন আমার অন্তরে,
           শুদ্ধ স্বদেশ গড়তে বীর অশান্ত-ওরা অন্ত।



✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য
রচনাকাল-২০অক্টোবর ২০২০ সাল,
বাংলা ৩ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,মঙ্গলবার।
দাকোপ খুলনা,বাংলাদেশ।