বঙ্গবন্ধুর প্রতি
✍- উজ্জ্বল সরদার আর্য


           হে-বাংলার বীর দূর করেছো তিমির
          অধীর আগ্রহে শুনি তোমার কত কথা,
              জয়-জয় হয়েছে তোমার জয়
                     চতুর্দিকে শত্রুক্ষয়
                       হে বীর নেতা।
        তোমার স্পর্শে স্বদেশ বিদ্রোহে গর্জেছিল
            প্রাচীন প্রাচীতে প্রভাকর উঠেছিল-
                     বাংলার অন্তরীক্ষে,
                রণ-রঞ্জিত নবীন রঙিন নীরদে
                  লিখছি কবিতা ছন্দে-ছন্দে
                      ঝরছে রক্ত বক্ষে।


           হে-মহান অমর তোমার বাণী-শ্লোগান
                       জেগেছিল জনতা,
               জিঞ্জীর বাঁধা পেরিয়ে ছুটেছিল
                         রক্ত দিয়েছিল
                 নিয়েছিল প্রাণ হয়ে একতা।
             এসে ছিলে তুমি হয়ে অগ্নিশিখা
                        দেখাতে দিশা
                  পেয়েছে দেশদ্রোহী দণ্ড,
            কোদণ্ডটঙ্কার তোমার নব উল্লাসে
                উঠেছিল বিদ্রোহ বিধ্বংসে
           আজ আকাশে হাসে উজ্জ্বল মার্তণ্ড।


     এখন একটাই সকলের আশা মনোনীত মনে
             জয়ের উল্লাস দেখি শয়নে স্বপ্নে
       তুমি শিখিয়েছ বিদ্রোহের বদলে বিদ্রোহ,
             হানিতে-আঘাতে দিবা-নিশিতে
                  জাগাও কামনা-কলহ।
       তাই ভিতু সৈনিকও আজ করে না ক্ষমা
                       ছুড়েছে বোমা
                 পুড়ছে স্বদেশ জুড়ে শত্রু,
       শতাব্দী সাক্ষী ওদের ভয়ে পালিয়েছিল পক্ষী
           আজ আমি দেখি তাদের করুণ মৃত্যু।
                
                  হে-বীর করেছ ছিন্ন শির
              বজ্র কণ্ঠে কাঁপিয়েছ  লোকাতর
                     প্রণাম করি বারবার -
                         চরণে তোমার,
                    তুমি অমর ওগো অমর।
          জানি আত্মাহুতির রক্ত কখনো হয়না বিফল
                   তুমি আছো প্রাণে চিরকাল
                       করবো শত্রু বিনাশ
             তোমার আদর্শে আদর্শিত আমরা মুক্ত
                      করছি জয়ের উল্লাস।



✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য
রচনাকাল ৮ ওই ডিসেম্বর ২০১৫ সাল,
বাংলা ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২২ বঙ্গাব্দ
মঙ্গলবার দুপুর ১২ টা
দাকোপ খুলনা,বাংলাদেশ।