জাগরণ গীতি
✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য


          রাতের আঁধারে বদ্ধ ঘরে
               ঘুমিয়ে তুমি কে?
       প্রভাত দ্বারে এসে ভালোবেসে
               ডাকে তোমাকে!
   তুমি জাগো,গাও তোমার অলস মনে
       জাগরণ গীতি এই করুণ দিনে-
      দরিদ্র ছুঁয়েছে প্রাণে পীড়িত দেহে
            পথে পড়ে ওরা থাকে!
       মৃতকল্প তরুতে ফুটবে কি ফুল
         চিন্তিত জননী থাকে শোঁকে!!


     তাই এবার ছুটে চলো রক্ত ঢালো
                 রঙিন পথে,
        প্রাণ দিয়ে প্রাণ নাও সঙ্গ দাও
                  একসাথে।
        আজকের এই স্বাধীন চেতনায়
              শত্রু মোকাবেলায়
         তুমি কি যাবেনা রণক্ষেত্রে?
    আমার ক্ষত বুকে বিদ্রোহের ছবি আঁকে
          তোমার এই নির্বীজ রাতে।
        যদি হও বীর, তবে কেন ধীর?
        সৈনিকের শক্ত হাতে অস্ত্র ধরে
                  লড়তে হবে,
           যদি ভাঙো বুকের পাঁজর
        ওরা বলবে ক্ষমা করো মোর
         মৃত্তিকায় সব লুটিয়ে পড়বে।


      ওরে কত আর হবো ক্ষত মর্মাহত
              ধরবো ধৈর্য-ধারণ,
        ওরা চাবুক মারে রক্ত ঝরে
              অকালে হয় মরণ!
         তাই তোমায় করেছি স্মরণ
                বিদায়ের দিনে,
             অস্ত্র ধরো শক্ত মনে -
         হবে রণ রঞ্জিত রক্ত প্লাবনে
          উঠুক বিধ্বংসী সাইক্লোন!
      তবে জুড়বে প্রাণ করবো জয়গান
           হবে ছিন্ন শিকল বাঁধন!!


     আরো ঝরবে শিশির নিথর রাতে
       শারদ প্রাতে সাজাবো স্বদেশ,
         হবে ওরা ক্ষয় দুর্ভিক্ষ জয়
      থাকবেনা কোন বিবাদ-বিদ্বেষ!
    বসন্ত বনে ফুটবে ফুল প্রাণ দানে
   তুমি জাগো-জাগো এই প্রভাত ক্ষণে,
     আজ এসেছে কবি তোমার স্মরণে
             দেখতে বীরের বেশ!
         গর্জিত মেঘে শুনি জয়ধ্বনি
                 কম্পিত ধরণী
       আজ ডেকেছি মুক্তির সমাবেশ!!


✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য
রচনাকাল ২৬  মে ২০১৯ সাল,
বাংলা- ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, রবিবার।
দাকোপ খুলনা, বাংলাদেশ। ★*