দিনের শেষে' অর্যমা অব'ছায়া আঁচলে মাখা
গোধূলি'তে,
এসেছি স্মৃতি রেখা ধরে 'নিদ্রামগ্ন প্রেমের কাছে'।
দক্ষিণা বাতাসে' ভেসে আশা বাগিচায় ফোটা ফুলের গন্ধ,
এখানে তুলেছে এক মিষ্টি অপূর্ব অনুভব।
এখানেই মুহূর্তেরা হয়ে উঠেছে,
সন্ধ্যা প্রদীপের আলোর মত উদ্ভাসিত।


রং ঝরানো আকাশ,
পাখিদের ঘরে ফেরার ব্যস্ততা,
নদীর কলতান...
এখানেই রাখালের বাজছে বাঁশি,
চেনা মুখ অচেনা ভালোবাসার কবির-কবিতা,
আর বিরহ গান।
এখানেই, এখানেই বুকের মাঝে ঘুমানো প্রেম
জেগে ওঠার দুরন্ত উচ্ছ্বাস।
সেই কাজলে আঁকা আঁখি,
মাধুরী'ময় অধর,
সন্ধ্যামণি'র মত মুখ....
এখানেই বাজছে নূপুর ধ্বনি,
সজ্জিত নন্দিনী,
এখানেই স্বর্গ সুখ।


এখানেই শরীরের গন্ধ হৃদয়ে দিচ্ছে দোলা,
আর প্রেমিকার শাড়ির আঁচল ধরে ছুটে চলা,
এবং জড়িয়ে ধরে চোখে চোখ রাখার মত
গভীর ভালোবাসা।
এখানেই শিল্পীর আঁকা আছে তোমার চিত্র,
আব'সন খুলে শরীরে-শরীর মিশিয়ে পড়ে থাকার মত
সব রং তুলি।


এখানেই পেয়েছি প্রেম,প্রাণের তৃপ্ত তার সুর...
স্মৃতি গুলো বর্বের মত জমাট বেঁধে তৈরি করেছে তোমার সমাধি এখানেই।
এখানেই চিরদিনের মত ঘুমিয়ে পড়ার দেখেছি স্বপ্ন,
মায়ের কোলে থাকা শিশুর মত হয়ে নগ্ন।
এখানেই আছো তুমি, হারানো সুরে কিছু কথা কিছু গানে, আমার ভুবনে।


উজ্জ্বল সরদার (আর্য)
রচনাকাল ১২ ওই নভেম্বর ২০১৮ সাল
রাত ৩ টা..