তোমার শরীরের সমস্ত অঙ্গ জুড়ে
আমার এক একটা কবিতা।
কখনো তোমার চোখ,
কখনো তোমার মুখমন্ডল।
কখনো-বা তোমার কেশ থেকে ঝর্ণার মতো
ঝরে পড়া এক একটা বিন্দু
অক্লিষ্ট প্লাবনে বয়ে নিয়ে যায় একটা শব্দ নদী।
তুমি তখন তৃষ্ণার্ত'কে বলো চরিত্রহীন
বোঝনা, এখন আমার শুধু শব্দের সাথে প্রেম।


তোমার স্বচ্ছ তনু ভরে সূর্যের বাস
তিমির করেছে পরাজিত সারাটা প্রহর।
অন্ধকার ভুলে যাই তোমাকে দেখেই
তৈরি করি শব্দের পাহাড়।
কখনো নির্জন নিশীথে,
কখনো-বা ভোরের লালচে আলোয়
তোমার ওষ্ঠ হয়ে ওঠে লাল।
তখন শরীর জুড়েই শব্দগুলো লেপন করে রাখি
তাই এখন শুধু শব্দের সাথেই প্রেম।