যাযাবর বাইদ্যা গুলির অযাচক ভালবাসায়
অতিষ্ট জীবন আমার নিয়ত কাঁদায় হাসায় ।
কোমল হৃদয় দেখতে নারি নেংটো ছোরার দল
দুর্বলতায় পোষাক কারে, কারে খেলার বল ।
ছেমরীটা সর্দ্দি নাকে সকাল বেলা বসে থাকে
প্রাতঃরাসের বাটি লয়ে ছৈয়ের তলে মুখ ঢাকে ।


ছবিনা আর কলো শাড়ি দেখতে কিন্তু লাগে ভারী
বললে বিপদ চোখের জলে ভাসিয়ে দেবে বাড়ি ।
না দিলেও আপদ যায়না দিয়ে পরলাম ফ্যাসাদে
শাড়ী গয়না দিলে যখন এবার নিয়ে যাও প্রাসাদে ।
আমি হলেম গোবেচারা,  বড়ই শান্ত শিষ্ট
পূনঃ বিয়ের কথা শুনে সংসার হল নষ্ট ।
সর্দারের আর্জি শুনে ছবিনা আজ আমার ঘরে
সুকোমল হৃদয়টারে ভাঙ্গল শখের বিষ ভরে ।


ছবিনা আর যাবে না সাপের বিষ ঝাড়াতে
দিব্যি সুখে দিন কাটে তার ঘুড়ে ফিরে পাড়াতে ।
যাযাবর বাইদ্যা গুলি গেল না আর দেশান্তরে
থেকেই গেল এই খানেতে ঐন্দ্রজালিক অন্তরে ।
কোমল হৃদয় আর কাঁদে না দুর্দ্দশাতে নিরান্নে
হতাস মনের উদাস কন্ঠ কাঁদে গানে গানে ।


মান গেল জ্ঞান গেল যাযাবর স্থায়ী হল
ছবিনার ঘর হল, আমার কি হল ?
জানিনার জবাব আমার অনেক আগেই জানা
তবুও আবার এগিয়ে যাই,  আনন্দ অচেনা ।।