(গুটি গুটি পায়ে পথ চলতে চলতে আজকে আমার ৫০তম রচনার প্রকাশ, কাব্যিকতায় বিশেষ কিছু না থাকলেও অন্তরে গভীর অনুপ্রেরনা উপলব্দি করতে পারছি, এই শুভ দিনে সকলের কাছে বিনীত নিবেদন - এভাবেই যেন ভাবের আদান প্রদানে সমৃদ্ধ হয় আমাদের আসর , এই শুভকামনা করি ।)


আমরা মানুষ ভেবেই মরি
  ভাল হবে কীসে ,
ভাল'রা সব ঠাঁই নিয়েছে
  বড় লোকের বাসে ।


রবি কিরন আটকে থাকে
  অট্টালিকার ছাদে,
ডেরার শোভা ছোট্ট খোকা
  রোদের জন্য কাঁদে ।


বৃষ্টি বাদল ভেঙ্গে আদল
  বানের জলে ভাসে,
রোগ জীবানূ পুষ্টি পেয়ে
  আসে অনায়াসে ।


নিয়ন্ত্রিত শীত তাপের
  দুর্মূল্য সব গাড়ী,
স্বপ্ন ভাঙ্গে ছেঁড়া কাঁথার
  ভাঙ্গে ঘর বাড়ি ।


ন''মাসের পোয়াতি মা'র
   উদর ক্ষুদার্থ,
ডাস্টবিনের খাবার কূড়ায়
   পশুর সনে ব্যর্থ ।


গোলাপ রংয়ের ইটের ভাজের
   নীল কামরার ধ্বনি,
আলোর রোশনাই ঠিকরে বেড়োয়
   অন্দরে শিরমনি ।


দিনের শেষে কাজের মাসীর
     পাওনা উদ্বৃতাহার ,
ডেরায় ফিরে মাতাল স্বামীর
     উপরন্তু প্রহার ।


সমাজ দোষে অর্থকড়ি
   বড় লোকের মোঠে,
আজ প্রকৃতি ছন্দ ছাড়ি
   বড়ই বিদ্ ঘুটে ।


আকাশ বাতাস রবি শশী
   সব তাঁদেরই পেটে,
নিষ্ঠুর ধরার অহর্নিশি
   রিক্তের নাহি জোটে ।


একাংশেতে দিলে ঈশ্বর
     স্বর্গ সুখ ভরি,
আরেকাংশে রইল শুধু
   কাঙালের ছড়াছড়ি ।