(আমরা অনেক সময় লেখার ইচ্ছে থাকে কিন্তু সময় পাই না আবার কখনো সমইয় থাকে কিন্তু লেখার আগ্রহ জন্মায় না, এই দোলাচলে থেকে থেকে যখনই সময় এবং লেখার ইচ্ছেকে একত্রিত করে লিখতে বসি তখনো আবার অনেক রকম যান্ত্রিক বা পারিপার্শ্বিক  সমস্যা সুবিধা অসুবিধা ডিঙিয়ে চলতে হয় । সমস্ত বাধা পেরিয়ে দু চার লাইন লিখতে গিয়ে আজকের পর্বে আমি আমার আত্মকথারই কিছু অংশ আপণ মনে আপণ খেয়ালে লিখে গেলাম)

ঘন কূয়াশার বুক চিড়ে এক চিলতে রোদ যখন বাড়ান্দায় পরতে চায়, ঠিক তখনি মাথাচারা দেয় বাধার মহীরুহ । এমনি করেই চলতে থাকে এগিয়ে চলা ।মাটির দুচালা ঘরের দাওয়ায় বসে নিরালায় ভাবতে বসে মনে পরে , কি দারূন ছিল সে দিনগুলো ! চিন্তা নেই ভাবনা নেই, শুধু পড়াশুনা আর পড়াশুনা । ছোটবেলা থেকেই পড়াশুনার একটা ভীষন নেশা চেপে গেছিল মাথায়, ক্লাসে প্রথম হওয়ার সে কি অদম্য স্পৃহা কিন্তু সকলের জীবনেই হয়ত কোন একটা না পাওয়া থাকে ; আমার জীবনেও না পাওয়া অনেক কিছুর মধ্যে একটা হল আধা নম্বর বা তারও কম নম্বরে কোন দিন ১ম না হতে পারা ; আর এই ১ম নামের বস্তুটা অধরা রয়ে গেল সারা জীবন সমস্ত স্তরে সমস্ত বিভাগে । মাধ্যমিক বা মেট্রিক, দ্বাদশ এমনকি গ্রেজুয়েশানেও ১ম বিভাগ ছুঁই ছুঁই করে ২য় বিভাগে পাশ করতে হল । তারপর তো শুরু হল জীবন যুদ্ধ, পেশাগত এই যুদ্ধের ক্ষেত্রেও আমার অভিজ্ঞতায় স্থান করে নিল , দারূন দক্ষতা ও কারুকার্য্যতায় বার বার প্রশংসিত হলেও সবার সেরা হতে পারিনি কোন দিন, তবে বরাবর সেরার শিরোপা পেতে অবশ্য কোন অসুবিধা হয়নি কোথাও । সংসার জীবনেও যদি বলি, ঘটমান বর্তমান বিশ্লেষনে স্বামী, পিতা, অভিভাবক যে কোন স্তর থেকেই অকৃতকার্য্য এর বদনাম থেকে রেহাই পেলেও ১ম স্থানের দাবী করতে পারিনা নিঃসন্দেহে । আজকের দিনে যখন লিখছি, তখন আমার পেশাগত ও সাংসারিক জীবনের পাশে আরেকটা যে জীবন রয়েছে সেটা হল 'রাজনীতি' (যদিও এই রাজনীতি শব্দটা নিয়েই আমার আপত্তি আছে, কেননা রাজা বিহীন দেশে রাজনীতি হবে কেন ? গনতান্ত্রিক রাষ্ট্রে জনসাধারনের হিতের জন্য যদি কেহ কাজ করার কথা ভাবে তবে তো সেটা 'জননীতি' হওয়া বাঞ্ছনীয় নয় কি !)সেখানেও দারূন ভাবে এগিয়ে গিয়ে পেছন ফিরে দেখি ১ নম্বর জায়গা টা আমার খালি নেই । সে যে কারনে বা যে কোন পরিস্থিতিতেই হোক না কেন প্রথম হওয়ার সাধ আমার পূরণ হয়নি কোন দিন, আর হবে বলে আশাও রাখি না এখন আর । লেখার কথা ! লেখার ইতিহাস বা লেখার বৃত্তান্ত নিয়ে আরেকদিন লেখার ইচ্ছে রইল কিন্তু যে কথাটা আজকেই বলা দরকার সেটা হল, এখানেও কখনোই একেবারে উচ্চমানের কথা ভাবতে পারিনা কিন্তু কোন কোন লেখা যে পাঠকের মনে স্থান পায় সেটাও বলাই বাহুল্য ।