১৪১.
"A friend in need is a  friend indeed."


বন্ধুত্বের পরীক্ষা যেমন বিপদে, মানবতার পরীক্ষা তেমন বিপর্যয়ে l কবিতায়, গল্পে মানবিকতা প্রসঙ্গটি ঘুরে ফিরে আসে l কখনও কোনো বিশেষ ঘটনার সাপেক্ষে মানবিকতার জয়গান গাওয়া হয় l আবার কখনও মানবতার অপমানে কবির কলম গর্জন করে ওঠে l


কবি খান লোকনাথী রচিত "অনন্য মানবতা" কবিতাটিতে একই সঙ্গে এই উভয় স্বর লক্ষ্য করি l সাম্প্রতিক বন্যা পরিস্থিতি এক বিশাল বিপর্যয় আকারে দেখা দিয়েছিল l অনেকটা জায়গা জুড়ে অসংখ্য মানুষ এই বন্যার দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন l ঘরবাড়ি ভেঙেছে, জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে, বহু মানুষজন, গবাদি পশু বন্যার জলে ভেসে গেছে l দিনের পর দিন খোলা আকাশের নীচে, কোনো উঁচু জায়গায় বন্যাপীড়িত মানুষদের থাকতে হয়েছে l খাদ্য পানীয়ের চরম সংকটের মধ্যে l এ ছিল মানবতার কাছে এক চরম পরীক্ষা l অসহায় মানুষজনদের রক্ষা করার জন্য তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর সময় ছিল এটা l
এক্ষেত্রে দুটো জিনিস লক্ষ্য করা গেছে l মানবতার যাঁরা 'চিরমিত্র' বলে পরিচিত, ঘোষিত, দূরদর্শনে, সংবাদপত্রে মানুষের দুঃখ-কষ্টে যাঁদের নিয়মিত অশ্রু ঝরে, মানুষের দুঃখ দুর্দশা নিরশনে প্রতিনিয়ত যাঁরা হাজারটা পরিকল্পনার গল্প শোনান, মানুষের এই বিপর্যয়ের দিনে পাশে দাঁড়ানোর জন্য সেই নেতা মহানেতাদের খোঁজ মেলে নি l চিরাচরিত বিষয় যেগুলি বরাবর তাঁদের লাভ দিয়ে এসেছে, সেগুলির চর্চা ও অনুশীলনে তাঁরা ব্যস্ত থেকেছেন l কবির রচনায় ধিক্কার বর্ষিত হয়েছে এই স্বঘোষিত মানবতার ঠিকাদারদের প্রতি l


কিন্তু বিপরীত চিত্র দেখা গেছে যখন মানুষের এই বিপদের দিনে সাধারণ মানুষজন এগিয়ে এসেছেন l বানভাসি হাজারো ক্ষুধার্ত মুখে তাঁরা জুগিয়েছেন দুবেলা দুমুঠো খাবার l ফুটপাতে আশ্রয় নেয়া অগণিত মানুষদের দিয়েছেন মাথা ঢাকার জন্য ত্রিপল l প্রকৃতির রুদ্ররোষে যখন মানুষের বেঁচে থাকার মৌলিক অধিকার বিপন্ন হয়েছে, তখন তাদেরই সহোদর মানুষজন বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করে এনেছেন পরিধেয় কাপড়চোপড় l বিতরণ করেছেন পানীয় জল l মহানুভব চিকিত্সকদের সহায়তায় আয়োজন করেছেন স্বাস্থ্যশিবির, যেখানে প্রাথমিক চিকিত্সার সঙ্গে সঙ্গে বিতরিত হয়েছে বিনামূল্যে ওষুধ l পরিবহনে, নৌকায়, কখনও পায়ে হেঁটে, জল ঠেলে ত্রাণ নিয়ে দূর দূরান্তে দুর্গম অঞ্চলগুলিতে পৌঁছে গেছেন এই স্বেচ্ছাসেবী দলগুলি l
যখন প্রশাসনিক সাহায্য এসে পৌঁছয় নি, সরকারি আয়োজন প্রস্তুতিপর্বে, তখনই সাধারণ মানুষের বিপদে সাধারণ মানুষের এই এগিয়ে আসাটা মানবতার এক বিশাল জয় l যখন চারিদিকে ছোটখাটো বিষয়ে শুধু হানাহানি চোখে পড়ে, তখন স্বদেশবাসীর এই স্বতস্ফুর্ত মানবিক আচরণে বিস্ময় জাগে l বিস্ময় জাগে, যখন দেখি, প্রশস্তচিত্তে, অকৃপণ মমততায়, স্বদেশবাসী স্ব-মুখের অন্ন তুলে দিচ্ছেন অসহায় ক্ষুধার্ত শরণার্থীর মুখে!


মানবতার চির মিত্রগন যখন সাম্প্রদায়িক বিভেদের মধ্যে লাভ-ক্ষতির হিসাব কষছেন, এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের দিনে তাঁদের সেই মুখোশ উন্মোচন করে
দ্বিধাহীন চিত্তে মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত রচনা করেছেন দেশের অতি সাধারন মানুষজন l


যাঁরা নিজেরা অনাহারে থাকেন, জীবন যাপনের ক্ষেত্রে অনেক নিপীড়ন সহ্য করেন, অনাহারীর মলিন মুখ দেখে তাঁদেরই ভিতর কাঁদে l নির্যাতিত’র করুণ আর্তনাদ তাঁদের হৃদয়কে ব্যথিত করে। নিজেদের সীমিত সামর্থ্যটুকু নিয়ে তাঁরা বিপর্যস্ত মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসেন l
মানবিকতার এই অনন্য সাক্ষ্য মানবসমাজকে গর্বিত করেছে l এই মহানুভবতা দেখে আশা জাগে যে ঘনাবৃত মেঘ মানবসভ্যতাকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে, তা একদিন কেটে যাবে l সেদিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা হবে প্রশস্তচিত্ত এই মৃত্তিকার অনন্য মানবতার গল্প।
অনন্য কবিতাটির জন্য কবিকে জানাই অন্তহীন শুভেচ্ছা !