৮৩.
লিমেরিক স্টাইলে দীর্ঘ কবিতা l জীবন সন্ধ্যায় হিসেব নিকেশ l সুন্দর চিত্রকল্পের ব্যবহারে জীবনের নানা প্রাপ্তি, অপ্রাপ্তি, স্বপ্ন, সুখ ও বেদনার উপস্থাপন l


জন্মভিটে সাধের মায়ানগর l কিন্তু সেই মায়ার টানে বাঁধা থাকলে তো চলে না l জীবনের পথে এগুতে হয় l কৃষ্ণসাগর পেরিয়ে দূরের আহ্বান আসে l সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে বেড়িয়ে পড়তে হয় l ইচ্ছে-নদীর ঢেউ মাতানো খেলায় জীবনযুদ্ধে লড়ে যেতে হয়, ঝড়-ঝাপটার মোকাবিলা করতে হয় l এভাবেই জীবনপথ পেরিয়ে দিনাবসান হয় l রাত্রি তার অনুসঙ্গ চাঁদ তারা নিয়ে আবির্ভূত হয় l তার সাথে জীবনকে মিলিয়ে বাসর রচনা করতে হয় l


জীবনে চলার পথে কতো কথাই তো বলা হয় l কিন্তু দিনের শেষে মনে পড়ে কতো গুরুত্বপূর্ণ কথা অব্যক্ত রয়ে গেছে l এরকম কতো কথা শোনাও হয় নি l দ্বিধা দ্বন্দ্বে পূর্ণ আলো আঁধারি জীবনে করছি, করবো না এই সংশয় থাকে l আয়ত্ত জ্ঞানের চর্চা চলে, মানুষের মেলায়
আনন্দ বন্টিত হয় l ছন্দে তালে জীবন কেটে যায় l


জীবনের স্বরগ্রামের পরিবর্তন হয় l ঋতু পরিবর্তনে প্রকৃতি ভোল পাল্টায়, বর্ষায় জল থই থই, বসন্তে কোকিলের কুহুতান l তেমনই মানুষ তার জীবনের বিভিন্ন বয়সে ভিন্ন ভিন্ন বিষয় ভোগ ও ব্যবহারে আনন্দ আহরণ করে l মধ্যাহ্নে কাঁচকলা দিয়ে মাগুর মাছের ঝোল তার প্রিয় আহার হয় l এর পাশাপাশি মনে অন্য ঋতুর খেলাও চলে l কথার জাল বোনে, ভাবের আধিক্য আসে, সুর তালে মেতে উঠে l মনের মধ্যে স্বপ্নের কুঁড়ি ফোটে, বিকশিত হয়, যেমন ঘুড়ির খেলায় সুতোর গিঁটে গিঁটে মাঞ্জা দিয়ে সুতোকে শক্ত করা হয়, তারপর প্যাঁচের খেলায় অন্য ঘুড়িকে বাগে আনা হয় l


কিন্তু জীবনে চলার পথ সদা মসৃণ নয় l সবকিছু পরিকল্পনা মতো চলে না l অজানা ভয় মনকে গ্রাস করে l প্রচেষ্টা যখন আকাঙ্খিত ফল দেয় না, মন হতাশায় ভরে ওঠে, শোকগ্রস্ত হয় l কুসংস্কারের প্রকোপে মন দূর্বল হয় l অনুমান ভুল প্রমাণ হয় l আলাপ প্রলাপে পরিণত হয় l নিজেকে শোষিত, অত্যাচারিত মনে হয় l


মানসিক এই অবস্থায় নিজেকে অতি তুচ্ছ মনে হয় l নিজের প্রাণপণ প্রচেষ্টাকে মনে হয় যেন অগভীর ডোবা, ঝিলে পুঁটি মাছের ছটপটানি l সত্যের সন্ধান বৃথা মনে হয় l কোলা ব্যাঙ আর সোনা ব্যাঙ সনাক্ত করার ক্ষমতা থাকে না l জীবনের গূঢ় সত্য সে কেমন করে সন্ধান করবে ? কর্মক্ষমতা কমে যায়, কর্মতৎপরতা কমে যায় l কাজে বিলম্ব হয় l ক্রোধ আসে l আত্মবিশ্বাস কমে যায় l  নিজের স্বকীয়তা, নিজের জাত, ধর্ম সব ভিত্তিহীন বলে মনে হয় l মনে হয় যেন ভুল করে কোনো আজব, কল্পনার দেশে আসা হয়েছে l


ভাবনায় মন বিভোর হয় l সময় এগিয়ে চলে l সূর্যের দিক পরিবর্তনে ছায়া লাফিয়ে লাফিয়ে সরে যায় l এই ছায়া সরে যাওয়া বেলা বাড়ার রূপক l জপের মালা গোনার মধ্যে দিয়ে জীবনে পাওয়া ও হারানোর হিসাব চলে l অতীত বারে বারে স্মরণে, মননে উঁকি মারে l অতীত কার্যকলাপ কখনও কাঠগড়ায় দাঁড়ায় l ভণ্ড যোগী মহিষাসুর প্রতিপন্ন হয় l


অতীত বর্তমান নিয়ে, সাফল্য ব্যর্থতা নিয়ে বেহিসেবী অঙ্ক কষা চলতে থাকে l দূরের স্মৃতি স্রোতের মতো মননে ভীড় করে l চিন্তায় উত্তেজনা বাড়ে l অবহেলার স্মৃতি যন্ত্রণা দেয় l হারিয়ে যাওয়া বিষয়গুলির জন্য ভাগ্যকে দোষারোপ চলে l চিন্তায় চিন্তায় জগৎসংসারের সব বিষয়গুলিই এসে পড়ে l আপশোস, হতাশায় মন ভরে ওঠে l


তবু ভেঙ্গে পড়া নয় l কেউ সঙ্গে না থাকলেও "একলা চলো রে" নীতিতে ভবঘুরের মতো সন্দেহ নিয়েই অজানা পথে পাড়ি চলে l জীর্ণ তাপ্পি লাগা বসনে, বহু রূপে জীবনযুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়া l জয় করায়ত্ত হলে সেই জয়ের গৌরবের বোধ অনুভব l মুখেচোখে সেই গৌরবের অনুভবের আভা l এভাবেই নিজেকে নিজের পাশে পেয়ে হৃত আত্মসম্মানবোধ ফিরে আসে l নিজের মধ্যেই সান্ত্বনা পায় মানুষ l


এভাবেই সুন্দর নানা চিত্রকল্পের ব্যবহারে জীবনের নানা প্রাপ্তি, অপ্রাপ্তি, স্বপ্ন, সুখ ও বেদনার উপস্থাপন করে কবিতাটির মধ্যে কবি জীবনের জয়গান গেয়েছেন l


সুন্দর জীবন বৈচিত্র্যে পূর্ণ কবিতাটির জন্য কবিকে আন্তরিক শুভেচ্ছা l