আমার প্রিয়তমেষু আমার বোধ;
আজ তোমায় দেখলে
আমি লজ্জায় অবনত হই।
সংকুচিত হই !
ব্যর্থতা আর বেদনার নির্মম কষাঘাতে
নির্যাতিত হই বারংবার।
চোখের জলের প্রকাশ;
সকরুণ আর্তনাদ।
নির্ভয়ে কিম্বা স্বভয়ে ,
মাটির খোলস থেকে বেরোয় দীর্ঘশ্বাস।
মনে করিয়ে দেয়
সেই সব মাধবী সময় ;
দুই হাজার তের চৌদ্দ কিম্বা পনের
যা আজ শুধুই ধূসর স্বপ্ন
দগ্ধ সিগারেটের নিঃশেষিত জীবন।
অথচ;
তোমার অধরে ছিল শরৎ শবনম
রাঙা প্রভাতে হাসতো লজ্জাবতী নারী।
খুজেঁ নিত ভালবাসার ওম্।
আনন্দ আবেগে উদ্বেলিত হতো
অনির্বাণ বন্ধু ও সময়।
যা আজ স্বার্থের উইপোকারা
খেয়ে করেছে ভন্ডুল।
অথচ প্রিয়তমেষু ;
এমন অনেক দিনই গেছে
যখন তোমায় দেখলে
আনন্দে উচ্ছসিত হতাম।
রক্ত রেণুতে ভাসিয়ে দিতাম
অসংখ্য শাপলার অনিন্দ্য হাসি।
মনের অজান্তেই খুঁজে নিতাম
আমার প্রীয় পুত্র মুখ।
যা আজ ;
ক্ষুধার্ত নেকড়ের থাবায়
প্রতিনিয়ত করছে আত্ব চিৎকার।
----------------------------