তুমি জানতে চাও, আমি কেমন আছি?

সম্প্রতি পাখিদের সাথে আমার বন্ধুত্ব হয়েছে,
অবশ্য পাখিদের ভাষা আমি বুঝিনা!
কিন্তু দীর্ঘদিন অবলোকন করে এবং
ওদের অঙ্গ-ভঙ্গি দেখে খানিকটা বুঝতে পারি।

ওরা এখন আর আগের মতো প্রাণবন্ত নয়!
গতকাল সন্ধ্যায় লক্ষ করেছি,- খোলা মাঠের
সবুজ ঘাস চিরে
মাটির ভিতরে খুঁড়ে-খুঁড়ে কি যেন একটা খুঁজছিলো
বিষন্নতায়
এপাশ—ওপাশ  চতুর্পাশে ঘুরেফিরে তাকাচ্ছিলো
চোখে-মুখে প্রচণ্ড ভয়!
চঞ্চুঠোঁটে কোন কথা নেই : সারাটা বিকাল নৈঃশব্দ- শান্ত এবং বাকরুদ্ধ  ছিলো;
কেবল চলে যাবার মূহুর্তে কিচিরমিচির ধ্বনিতে কি যেন একটা বলে গেলে!


আজ এখনো ওরা আসেনি -
দিগন্তে হেলে পড়েছে সূর্য -ঘুটঘুটে  করে অন্ধকার নেমে আসছে,-পৃথীবির এই ভূখণ্ডে;
আমি আকশের দিকে অপলক চোখে তাকিয়ে আছি-
ওরা আজ কোথায়?

কিছুক্ষণ পরে ডানা ঝাপটাতে-ঝাপটাতে ঝাঁক-হারা একটি পাখি এলো,—ঠোঁটে সূক্ষ্ম পেরেক ঠোকানো, কণ্ঠনালি ছেঁড়া-বুকে তীক্ষ্ণ তীর বিঁধানো,মাথায় বুলেটবিদ্ধ
চিৎকার করে বলছে,- "আমাকে বাঁচাও! আমকে বাঁচাও! বনে এখন চরম দুঃশাসন, -
একটি বিদঘুটে স্বৈরশাসক আমাদের উপর নির্মমভাবে নির্যাতন করছে,-
যদি তার পক্ষে কেউ কথা না-বলে,
যদি তাকে নিয়ে গান না-গায়,
যদি তার নামে কবিতা আবৃত্তি না-করে,
নির্বিচারে বনের পাখিদের ধরে-ধরে গুম
এমনকি নৃশংসভাবে খুন করছে
বনে এখন বেঁচে থাকা সংকট — বনে কোন স্বাধীনতা নেই!
আমাদের স্বাধীনতা কোথায় হারিয়ে গেলো?
আমরা আমাদের নিজস্ব ভূখণ্ডে পরাধীন অধিবাসী।"

এই জন্মের যৌবনে আমি পাখিদের মতো এরকমভাবেই বেঁচে আছি!!