থমথমে ঝমঝমে এলো বরষা;
যেন বাঁধন হারা ঢেউয়ের মতন বরিতেছে।


হঠাৎ !  
ঝমঝমে বরষায় ঝোপ হইতে বাহিরে আসিল নির্ভীক ডাহুক,
যেন আনন্দে বিমোহিত;
   নাচিতেছে ঝরঝর নবীন বরষায় আমেজে।


মনে হয় চারিদিক কাঁপিতেছে থরথর;
কেহ! ছাতার মতো পাতাটির নিচে লুকিয়েছে তাড়াতাড়ি,মনে হয় যেন জড়;


চারিদিকে নিস্তব্ধ; জনশূন্য কোলাহল
যেন সকল গহীন নিদ্রায় পরাভূত।


চারিদিকে বসিয়া রয়েছে বসন্তের পরজীবী কোকিল;
যেন স্বীয় স্বার্থে খাটাতেছে নিপুণ কাক।


রহিয়াছে জেগার, পক্ষী নয় সে —
যেন নিখুঁত জলদস্যু; কী কান্ডই না করিতেছে সে ?


ইহাদের ভীড়ে দেখিয়াছি উপকারী গৃধ্র;
যেন শোধন করিতেছে জগতের অনৌচিত্য,অজ্ঞতা,নিষ্ক্রিয়া।


তবুও রহিয়াছে অভাব,
চারিদিকে দেখা যায় আজও বাজ পাখিদের প্রভাব।