ঝরা ফুলের পরশ খোঁজে    পথের বাঁকে বাঁকে
চোখের জলে ফুলের রেণু আবেগ ঢেকে রাখে।


সাত সকালে নগ্ন পায়ে     ভোর বালিকা সাজে
মুক্ত শিশির কনায় কনায়      ছন্দ নূপুর বাজে।


শুভ্র মেঘের নরম ভাজে     উপচে পড়ে আলো
পাখির পালে স্বপ্ন উড়ায়    মেঠো পথের ধুলো।


টোকাই মেয়ে ক্ষিধের তাড়া ভাগাড় পানে চোখ
জীবন  সৃষ্টে   তফাৎ কেন?  প্রশ্নে  মলিন  মুখ।


বাসি খাবার  ভাগ বসাতে    ব্যস্ত ভাগাড় গাড়ি
উপোস থাকা   দেহের জ্বালা  সবই নিল কাড়ি।


পথের  বাঁকে  প্রমুদবালা  ক্লান্ত  পায়ের    ছাপ
শরীর  বেচে  জীবন খোঁজে   শোষিত পরিতাপ।


এইতো জীবন দুখের ক্ষরণ   নয়ন জলে ভাসে
আর বলয়ে খুশির জোয়ার   প্রাপ্তি  সুখে হাসে।