মহামারী ও খাদ্য সংকটে যখন ওষ্ঠাগত মানুষের প্রান
তখনও কি করবে তাদের তোমার ধর্মের পথে আহ্বান ?
নাকি আগে বাঁচাতে তাদের করবে তুমি অন্ন পথ্য দান ?
নাকি ধর্মের নামে তোমার দলভুক্তে করবে সুযোগ সন্ধান ?


যতটা ধার্মিক তুমি ভাবো নিজেকে নিয়ে আসলে তা নয়
আগে যদি বুভুক্ষ মানুষের দুঃখে তোমার না কাঁদে হৃদয়  
তবে ধর্ম তোমার রক্ষা বর্ম শুধু দিতে সদা ধার্মিক পরিচয়
ধর্মের ধব্জজা উড়িয়েই তুমি করতে চাও স্বীয় ইচ্ছার জয় !  


কেউবা আবার প্রবৃত্তির দাসত্বে আজীবন থাকছে ধর্মহীন
ঝোপ বুঝে কোপ মারতে খুঁজে মহামারী দুর্ভিক্ষের দিন
এই নির্বোধেরা জানেই না প্রকৃতিতে তারা করল কত ঋন
সীলগালা ঐ হৃদয়বানরাও তাই এমন দিনে থাকে উদাসীন ।


তাই বলি হে সুহৃদগন এই দুর্ভিক্ষদিনে বুভুক্ষদের বাঁচাও
নিজের খাবার ভাগ করে হলেও অর্ধেক তাদেরকে দাও
এই সুযোগে পারো যদি হৃদয়ের জায়গাটা আরও বাড়াও
প্রকৃত সুখী হবার তরে এটাই সুযোগ নাও হে লুফে নাও ।

দান করলেই বাড়ে মান আত্মা হয় মহান প্রাশন্ত হয় প্রান
সম্পদও বাড়বে চিরসুখীও হবে যত পারি করি সবাই দান ।


রচনাকালঃ- সকাল- ০৭.২৮টা, বৃহস্পতিবার, ২৬ চৈত্র ১৪২৬,
১৫ শাবান ১৪৪১, ৯ মার্চ ২০২০, মিরপুর, ঢাকা ।