যে আমারে গড়েছে তাঁর জঠরে ধারন করে
রক্ত মজ্জা দিয়ে জন্ম নাড়ীর যোগে - তিল তিল করে ,
জড়িয়ে বুকে ধরে স্নেহভরে যে আমারে
দেখিয়েছে সবুজ পৃথিবী একদিন,
পেয়েছি আলোর পরশ আমি
দেখেছি চাঁদ তারা রবি ,
পেয়েছি উন্মুক্ত আকাশের নীল,
চন্দ্রালোকিত রাত আর স্বর্ণালী দিন ।


তারেই কিনা এ'সমাজের মাতব্বরেরা যত
ধর্মের ধ্বজাধারী মুরুব্বিরা শত -
করেই চলেছে অবহেলা অপমান, করে ক্ষত বিক্ষত
শতাব্দীকালব্যাপী কেমন নিঃসংকোচে - ওরা অবিরত !
কেড়ে নিয়ে ন্যয্য যত অধিকার তার
দিয়েছে ওই কুলাঙ্গারেরা তাকে উপহার -
অবগুণ্ঠন, হিজাব, ঘোমটা ...
আর সাথে কিছু পাওনা উপরি -
যত লাঞ্ছনা, ধর্ষণ আর অবিচার ?


জন্মদাত্রীকে তোমার আমার
বলে কিনা সে অশুচি?
সে নাকি অসূর্যমস্পর্শা ?


মানিনা এমন ধর্মের অর্বাচিনতা ও নিষ্ঠুর ফরমান ,
সাথে হাস্যকর আরোপিত কিছু সমাজের নীতি ।
মানিনা এমন নিম্নরুচির ধর্মের যাজক ও সমাজ কর্তাদের।
সোচ্চারে উহাদের জানাই ধিক্কার।
____________________
অমিতাভ (২.০২.২০২০)


** যে বা যারাই এমন ধারনা পোষন ও প্রচার করে , আমার এই লেখা তাদের বিরুদ্ধে । জানি অনেকেই আছেন সহানুভুতিশিল , তাদের জানাই একত্রিত হওয়ার আহ্বান।