আদব - কায়দা
- এস, এম, আসাদুর রহমান


মায়ের পায়ে সালাম করে -আসি বলে রওনা দিল,
বই খাতার ব্যাগ পিঠে।


মাথায় হাত বুলিয়ে মায়ে বলে -স্কুল ছুটি হলে সোজা বাড়ি,
মারামারি যেন হয় না পথে।


আচ্ছা ঠিক আছে বলে হাঁটে ধির পায়ে,আড়াল হলে বাড়ির পথ,
অমনি  দৌড়ে স্কুলের ও পথে।


প্রথম বেঞ্চে বসতে হবে, নচেত বাবার ঝাড়ি খেতে হবে
বাড়িতে আসলে জিজ্ঞেস করবে,বসেছিলে কোন বেঞ্চে।


বই রেখেই মাঠেই দিল দৌড়, বন্ধুদের সাথে কত খেলা,
ইহাই জীবনের সুখের  মোহনার মোড়।


ছোঁয়া-ছুঁয়ি,বোমবাস্টিং,দাড়িয়াবান্ধা,
ক্লাসের ফাঁকে চোর-পুলিশ আর কলম কলম খেলা।


একদিন স্কুলে আসতে হলো দেরি,
ক্লাস শুরু হয়েছে,চুপ করে পিছনের দরজায় উঁকি।


বন্ধুরা সব বলল পিছনের বেঞ্চে, দোস্ত বস আমাদের কাছে,
মাস্টার মশাই যেন শুনতে না পায়, চুপে চুপে।


করলে প্রশ্ন আজ পেছন হতে উত্তর যায় আগে,
খুশি হয়ে  মাস্টার মশাই প্রশংসা করে,পিছনে চেয়ে।


কিরে তুই কেন আজ পিছনে,মাইর না খেতে চাইলে আয় সামনে,
বসতে হলো সামনের বেঞ্চে,শিক্ষকের ভালোবাসাতে।


অসুখ হলে বলত স্যারে, যাবি আমার ওষুধের দোকানে,
হামিদ স্যারের কথা আজও মনে পড়ে।


বাবার মত রাখত খেয়াল, প্রাথমিকের সব স্যারে,
রাস্তা ঘাটে সালাম পেত অন্তরের ভিতর থেকে।


আদব - কায়দা,শিষ্টাচার মানুষ কে মানুষ করে তোলে,
তাইতো এখন অমানুষ বেশি,যাচ্ছে মূল্যবোধ ধূলায় মিশে।