শুনতে পাচ্ছেন ? আপনি কি শুনতে পাচ্ছেন ?
আজ আমরা আপনার জন্যই এক হয়েছি
চন্দনের ফোটা দিয়ে একেছি
ধুপ জ্বালিয়ে তার সুবাস ছড়িয়েছি
রজনীর সাদা মালাতে সাজিয়েছি
একটা আসন ও ফাঁকা রেখেছি
যে কোন মুহুর্তে আপনি এসে পড়তে পারেন
সময় ধরে আপনার চলাফেরা... আপনি দেরী করছেন
সবার আগে আপনি আবৃত্তি করবেন
বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুলের ‘বিদ্রোহী ‘
আমি করবো গান ‘কারার ঐ লৌহকপাট’ আপনার-ই নির্দেশে
এখনও কি আপনার আসার সময় হয়নি ?
লাঠিধারী দীর্ঘদেহী আপনভোলা সবাকার প্রিয় মানুষটা ।
আপনার জন্য, আর একটু অপেক্ষা করি
হটাত আপনি যেন ‘লে হালুয়া’র একটা চরিত্র
জামার কলারটা উঠিয়ে কাঁধটা ঈসত ঝাঁকিয়ে
পরিস্কার চ্যালেন্জ ছুঁড়ে দিলেন আমাদের
‘আমাকে ছাড়া কেমন করে অনুষ্ঠান করবে ?
শুরুই করতে পারবেনা, শুরুতেই তো আমার.’
সময়টাকে ধরতে হ্য় আপনার থেকে শেখা
আগুনের ফুলকির মত জেদ একটু একটু করে দাবানল  
ঘাড়টা শক্ত হলো, আমি সঞ্চিতা তুলে নিলাম
বলেছিলেন ‘যা করবে ভালোবেসে করবে ফল পাবে‘
কোথায় যেন কি একটা ঘটে চলেছে,
বুকের ভিতর ক্রমাগত কি একটা যন্ত্রনা
ঠেলে বেড়োতে চাইছে...টের পেলাম পিঠে কার হাত
‘এইতো তোমার পাশে আছি, শুরু করো’
অন্তরে গুমড়ে থাকা তপ্ত লাভা স্রোত
উত্স মুখের বাধা ঠেলে সরিয়ে দিচ্ছে
আর ঝলকে ঝলকে আগুন ছড়িয়ে পড়ছে
আপনি যেন ফাঁকা আসন জুড়ে ধ্যানে বসেছেন
আমরা নিঃশব্দে গম্ভীর ধ্বনি শুনছি নিবিষ্ট চিত্তে ।
‘বল বীর – বল উন্নত মম শির  ।
শির নেহারি আমারি, নত–শির ওই শিখর হিমাদ্রীর । বল বীর ...