মানুষের কী চাই?
হাই রাইচ্ বিল্ডিং বাড়ী?
       স্বর্গচ্যুত অপ্সরী নারী?
                        মখমল জীবন?
                               অধরা যৌবন?


নিশির গহীনে শরাব সুধা আর এলিগন্ট কোট
চোখ যেন নুরের কোষ তৃষিত প্রেমিকার ঠোঁট,


এই আর কী
সবই তো ফাকি!
সবই যেন ভোগের আমিষ
নেইতো মুক্ত জীবনের চীস্
আমি তো এ সব কিছু করেছি তুচ্ছ জ্ঞান
জীবন ওতো গহীনের দেনা মুক্তির প্রয়াণ।


আমিতো পাখিই হবো উন্মূক্ত গগণ
সময় চোষে ফিরে শান্তি আচুম্বন
ডানা পালকের ঘ্রাণে নক্ষত্র বয়ান।


ফালি ফালি লোভের মধুময় জাফরান
আমিতো ওসব কিছু করি তুচ্ছ জ্ঞান।


মানুষের কী চাই এই ভুবনে?
ইচ্ছা স্বপ্নদ্রোহ কালের বন্ধনে!


অঢেল সম্পদ প্রাচুর্য্য ডালা
অজেয়ও নগ্ন মোহের মালা?


জীবন কী দাসত্ত মুক্তির মই?
নাকি সে ভালবাসা স্বর্গের খই?


আমি ওসব কিছু করি তুচ্ছ জ্ঞান
সত্যের সদন খুজি মুক্ত আসমান।


লোভের কশরত সিল্কা নেই এই দিলে
আমিতো পাখিই হবো সাত সমুদ্র নীলে।


  আমিতো অসীমের সুধা হ্নদয়ে ভরে
  ধরনীর যত সব রঙ তুচ্ছ জ্ঞান করে
   অনন্ত অসীমের দুর্বার পথে কান্ডারী
           দুর্গম অদিষ্টের সত্যের দিশারি।


অদ্রিতা রায়,  তুমিতো চেয়েছিলে হায়!
চাপিয়ে প্রেমের সকল ঋদ্ধ দেনার দায়
অর্থ বিত্ত বৈভব রঙ্গিন বাড়ি গাড়ি
প্রজাত্নতের আমলাগিরি কর্মচারী,


নিরাপদ শাষনহীন যৌবনের আশায়
ফুটে উঠে ছিলো চোখের চাহনির ভাষায়।


আমিতো পাখিই হবো ধ্রূপতী ভোরে
আকন্ঠে তুলে আনি ভালবাসার শিশির পরাগ।
জীবন বেদনার কৈয়ফিয়ৎ টানি সংগীত সুরে
উড়ি আর ঘুরি দুরতম দুরে জীবনের পুরোভাগ