তুমি প্রকৃতি দর্শন প্রচ্ছন্ন করে অজানা অনুদ্ধারে আলস্যে গড়েছ ঈশ্বর
অসীম প্রকৃতির মাঝে ঈশ্বর দূত সেজে পঙ্গু করেছ মানব চেতনা।


তোমার চোখে যতটা মহাকাশ দেখতে পাও
সেখানেই শেষ নয়!
কিন্তু গরিষ্ঠ মানুষ আজ তোমার সহগামী
ভাবতে চায় না সুদূর সজীবতা, রয়ে যায় অন্ধের সহযাত্রী!


শিক্ষার আলোহীনতায় ডুবে যায় কাব্যের গভীরতা
ডুবে যায় চেতনার আস্বাদন
নির্বাক দৃষ্টি ঘিরে ধরে আমার পথ
নিস্তবদ্ধ অশ্রুধারায় জমে শেওলার ঘনঘটা!
জীবনের গতিপথ বদলে যায় একদিন!


অমীমাংসিত ভাবনা, তবু খুঁজি সন্ধি!


এ সন্ধিই চিরকাল সংস্কারের অন্তরায়, অন্ধত্বের জন্মদাতা আর-
বিকলাঙ্গ চেতনার বাহক!


ধৃতি রাজ