আমি পেয়েছি দুই টুকরো কাপড়,
পেয়েছি বাক স্বাধীনতা।
বিনিময়ে আমার ভাইয়ের রক্ত আর
মায়ের রঙিন চাদরটা।
রক্তে ভেজা কত সিঁথির সিঁদুর,আর
হলদে কাপড়  পরিহিত ঐ রূপসীর শ্লিলতা।


আমি মোড়ানো একটুকরো কাগজ পেয়েছি,
যা পেন্সিল খচিত আঁকাবাকা দাগে ভরা।
পেয়েছি হাজারো পরিচয় বিহীন সমাধী,
সেখানে যেন প্লেকার্ড নিয়ে এখনো চলছে মিছিল,
শুধু লাশের মিছিলের শব্দ,
জয় বাংলা বাংলার জয় বলছে ওঁরা।


সাদা কাপড়ে ঐ সিঁদুরহীনা বৃদ্ধা আজ
তার দৃষ্টিতে দেখতে পায়না দিয়ে গগজ,
মুছে নিয়েছে তার রঙ্গিন দৃষ্টি
সন্তান হারানো সেই চোখের জল।


সেই যুবতি মেয়টি যে আজ বৃদ্ধা কিন্তু কুমারী।
লাল রঙ্গের কাপড় পরার স্বাধ সে আজ ও নেয় নি।
কে দিবে তারে পত্নীর সম্মান?
পাকিস্তানি যা নিয়ে গেছে সে তো তা আর ফিরে পায়নি।
বিয়ে করা যে তাই আজ ও তার হয়নি।


আমি আরো দিয়েছি কতো না বলা সুখের বিসর্জন 
করেছি যে তাও কম নয় কিছু অর্জন।