জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়ি বিখ্যাত ভুবনে
সেই বাড়িতে রবির কিরণ পড়লো বোশেখ দিনে l
বিশাল বাড়ি সবাই গুণী কেউ এক কেউ বা দেড়া
কালি তুলি গানে কথায় জীবন পড়ে ধরা l
ছোট্ট রবির চরণ দুটো টিকলো না তো স্কুলে
নিরস পঠন বিরস শাসন ছেড়ে মায়ের কোলে l
প্রাসাদ বাড়ির একটি কোণে ভৃত্য শ্যামের শাসন
খড়ির দাগে বন্দী রবির জানলা পাশে আসন l
রামায়ণের গল্প শোনেন ভৃত্য শ্যামের কাছে
গল্প শুনে কল্পগুলো রবির মনে নাচে l
কল্পনাকে সঙ্গে করে রবিকবি ছোটেন
শাখা এবং উপশাখায় পুষ্প হয়ে ফোটেন l
জানলা দিয়ে দেখেন রবি ছবি কতো লোকের
হাজার রকম নিয়ম তাঁদের ভঙ্গি হাত ও চোখের l
তারই পাশে বিশাল বটের পড়তো ছায়া এসে  
কবি রবির কবিমনটি যায় কবিতার দেশে l
প্রকৃতি মা পড়েন ধরা রবির কবিচোখে
কতো মানুষ কতো গড়ন আসেন ভবলোকে l
শিশুর ছড়া, মানবতার, সভ্যতা সঙ্কটে
রঙে রূপে রসের কথায় কবির কলম ছোটে l
কতো লেখা গান ও গল্পে উদয় বিশ্বকবির
বাহান্নতে নোবেল প্রাপ্তি জোড়াসাঁকোর রবির l
নিরস পাঠের অবসানে প্রকৃতি মা'র কোলে
রবির স্কুলে গাছের তলায় শিশুর হৃদয় দোলে l
ঘর ও বাহির গেলো মিলে বিশ্ব মিলনমেলায়
দূর ও নিকট পাশে পাশে হৃদয়ফুলের খেলায় l
দুঃখ আঘাত সয়ে সয়ে সঞ্জীবনী কবি
সকল ব্যথার পুষ্প ফোটান জোড়াসাঁকোর রবি l
সুরের কবি ধ্যানের কবি ওঠেন ভীষণ জ্বলে
জালিয়ানব্যাগ নৃশংসতায় দেন উপাধি ফেলে l
সবার উপর মানুষ সত্য - চন্ডিদাসের কথা
রবির লেখায় ওঠে ফুটে সকল মানবতা l