ছন্দ নিয়ে দ্বন্দ্ব কথা চলছে ভীষণ ভারী,
সহজ করে ছন্দকথা বলতে কি আর পারি?
ছন্দ হলো, কাব্যকথায় অক্ষরের এক মেলা,
মুক্তাক্ষর, যুক্তাক্ষর মিষ্টি রসের খেলা।
তিন প্রকারের ছন্দ আছে বাংলা কবিতাতে,
খেলা করে রঙ্গরসে কবির ভাবের সাথে।
স্বরবৃত্ত, মাত্রাবৃত্ত, অক্ষরবৃত্ত শুনি,
সোজাসাপ্টা এই কথাটি মানেন সকল গুণী।
ছন্দ কিন্তু বেজে উঠে কানের ভেতর ভাই,
এখন বলি, আসল কথা মাত্রা হিসাবটাই-
সকল ছন্দে এক মাত্রা মুক্তাক্ষর জানি,
যুক্তাক্ষর সব ঝামেলার এই কথাটি মানি।
স্বরবৃত্তে সকল সময় একমাত্রাই হয়,
আগে-পিছে যেখানেতেই যুক্তাক্ষর রয়।
স্মরণ রাখি দুই মাত্রা, মাত্রাবৃত্তে ভাই,
যেখানেতে হোক না কেন অন্যথা তার নাই।
অক্ষরবৃত্তে যুক্তাক্ষর ভীষণ জটিলতা!
প্রথম এবং মাঝখানে এক; শেষে হয় দুই তা'।
এই হলো ভাই ছন্দখেলা, নিয়ম মেনে চলি,
ছন্দের এই কথাগুলো ছড়ার ছন্দে বলি।
স্বরবৃত্তে পর পর দুই যুক্তাক্ষর হলে,
একমাত্রা যাবে বেড়ে ছন্দেরই কৌশলে।
ছন্দখেলা মজার খেলা যদি মানেন কবি,
কাব্যকথায় উঠবে ফুটে লালিত্যময় ছবি।


১৬/১১/২০১৭
মিরপুর, ঢাকা।