ব্যথা নিয়ে বুকে জল ছলছল চোখে
তোমার দিকেই চেয়ে রই অনিমিখে;
বুকের গহীণে দুঃখের সুর করুণ রাগিণী তোলে,
অতীতের প্রেম কিভাবে যাবো গো ভুলে?
তুমি কি কিছুই বোঝ না!
ওগো, পিছ ফিরে আর থেকো না।


হাসি মুখখানি ফেরাও এবার
আলোকিত করো এই সংসার;
ব্যথাতুর হিয়া গাহে মর্সিয়া
আঁখির সলিলে ভেসে যায় ধরা,
সপ্ত সাগর শুকিয়ে যে খরা।
তুমি কি গো কভু অনুভব করো না?
ওগো, পিছ ফিরে আর থেকো না।


দরদী তুমিই গৃহহীন পথিকেরে
ভালোবেসে তারে সোহাগে-আদরে
টেনে নিলে বুকে পরানের তলে
করে হৃদয়ের আপনা।
এখন কেনো যে দাও ঠেলে দূরে.
দয়া করে কিছু বলো না?
ওগো, পিছ ফিরে আর থেকো না।


ক্ষত ছিলো যত বুকের গভীরে,
ভালোবাসা দিয়ে মুছে দিলে তারে।
যে গৃহত্যাগীরে গৃহভোগী করে
বুকের ভেতরে নিলে প্রেমভরে;
কেনো আজি তারে রাখো দূরে দূরে,
কোন অভিমানে বলো না?
ওগো, পিছ ফিরে আর থেকো না।


দয়া করে তুমি আঁখি মেলে চাও,
তোমার করুণা বকুলের মতো
ধরণীর মাঝে ছড়িয়ে ছিটিয়ে দাও।
হৃদয়ের মাঝে নব কারুকাজে
মোহিত প্রেমের পরশ বিলিয়ে যাও।
সংক্রামক কোন রোগের মতোন
দূরে দূরে আর রেখো না।
ওগো, তুমি পিছ ফিরে আর থেকো না।


দূর বাউলের গান শুনি আজ একতারা তার বাজে,
গোধূলি লগ্নে পশ্চিমাকাশ রক্ত-আভায় সাজে।
তোমাতে চেয়েছি শান্তির নীড়
ব্যথা হরণীয়া-প্রীতি দরদীর,
অভিমান করে থেকো না গো দূরে।
বিরহ ব্যথার বুকের বেদনা, প্রিয়তি! কিছুই বোঝ না?
প্রতি দিনরাতে মম ভাবনাতে বিচরণ করো,
দয়া করে দূরে থেকো না।
ওগো, তুমি পিছ ফিরে আর থেকো না।


২৬/০৬/২০১৯
মিরপুর, ঢাকা।