হিসেব
---
কোন এক গোলাপ সন্ধ্যায় ভাসাই আমি
হিজল করচের ছায়ায় আমার বিস্মৃত অনুভব।
ভালবাসা আজকাল বড় একপেশে।
আছে কত জটিল হিসেব- আনা পাইয়ের খুঁচরো যন্ত্রণা।
সূক্ষ্ম ব্যক্তিগত লাভ ক্ষতি ভালবাসাকে দ্বি-খণ্ডিত করে।
ভালবাসা কেন সমগ্র হয়না?
ইচ্ছে করেই খণ্ড খণ্ড কর ভালবাসার পূর্ণ অবয়বকে।
দ্বি-খণ্ডিত জোড়াতালি ভালবাসা নদীর ভাঙনের মতই।
নিমেষে বিলীন করে দিতে পারে সমগ্র অস্তিত্ব।
যখন তুমি চোখ বেঁধে রাখো,তোমার দুটি চোখ অন্ধ শুধু
আমি তো অন্ধ নই,তাইতো আমি দেখি ঘুঁনে পোকাগুলি।
কেমন নিঃশব্দ নীরবে ক্ষয়ের রাজ্য গড়ে তোলে।
বিষের পেয়ালা নীল করে দেবে আমায়?
আমি তো নীলকণ্ঠ হব তীব্র নীলাভ বেদনায়,
তারপর আমি দেব অমৃত উপহার তোমায়।
কি করে দায় এড়াবে তুমি বল?
অমোঘ নিয়তি দাড় করাবে তোমায় নীল জোছনার পারে।
চাঁদ নয় একটি জ্বলজ্বলে তারা হয়ে আমি হাসব তখন।
কুণ্ঠিত তুমি,অনুশোচনায় দগ্ধ হবে,
তুমি ভালাবাসায় বিভেদ এনেছিলে ইচ্ছে করে,
তোমার বিজয় তাই তোমাকে দেবে একরাশ উপহাস।
যতই লুকাও তুমি,তুমিতো জানো কি ছিল তোমার মনে,
নিজের কাছেই সবচেয়ে বেশি পরাজিত হয় লুকানো বিবেক।
সম্মুখ সমরে আবার দ্বি-খণ্ডিত মন,
আবার তোমাকে যুদ্ধে যেতে হবে।
ফিরে পেতে হবে ভালবাসার সবটুকু,
নতুন নির্বাচনে, নতুন ভালবাসা।
যে হৃদয়ে দাগ পড়ে - তা কি বিশুদ্ধ হয় পুনরায়?
বিশুদ্ধ বন্দরে ভিড়াতে তরী, তুমি বেয়ে যাও তোমার তরী
কূল হীন বিশাল জলধিতে।
৬/৭/২০১৮