কাগজের নৌকাখানি
*
ছুটি হলে তুমি রোজ ভাসাতে জলে
তোমার হাতে গড়া কাগজ-নৌকা জানি,
তোমার ভাবনা তোমার খেয়াল খুশিমতো
ভেসে যেতো তোমার কাগজ নৌকাখানি।
আমার ছুটির বেলা উৎসব বিহীন কাটে,
কাটাই দিন আমি একাকী নৌকা গড়ে
তোমার মতো আমিও ভাসাই জলে,
ঢেউয়ের তালে নৌকা আমার নড়ে।
হেলে দুলে এপাশ ওপাশ চিন্তা বিহীন
ভাবনাগুলো ভাসিয়ে দেই দূর জলে,
শৈশবের কত স্মৃতি ভেসে যায় আনমনে
আমার নৌকা পরে,মন ভুুলানো ছলে।
নৌকাতে বোঝাই যত স্মৃতির মনিমুক্তো
কত হাসি কত কাঁদা,কত চাওয়া পাওয়া,
নৌকা আমার ভেসে চলে,সব নিয়ে যায়
আমার গড়া নৌকাটির সুদূর পানে ধাওয়া।
কত খেলা লুকোচুরি,গোল্লাছুট আর বৌচি
দোলনা দোলা কত বিকেল কত মুখর সন্ধ্যা,
ভাসিয়ে দেই চোখের জলে নৌকা ভরে
কাগজের নৌকা চলে, সময় যখন বন্ধ্যা।
খুঁজে ফিরি চেনামুখ,খুঁজি হারানো সে দিন
আসে যদি ফিরে নৌকা সবকিছু ফের নিয়ে,
বড় আশায় নৌকা গড়ে ভাসাই জলে আমি
নৌকা ফিরে আসে না হায়, যায় হারিয়ে।
ছুটি কাটাই নৌকা গড়ে, জলে ভাসিয়ে
চোখের কোণে অশ্রু গোপন কেবল হাসি,
ভেসে যায় চোখ আর নদীর জলের সন্ধি
অলসবেলা শেষ ছুটি,ঘোর অপচয় সব নাশি।
--০৬/০৬/২০১৯