জগতের অলক্ষ্যে একদিন হয় যার সূচনা
শুধু মা-ই বোঝে তাকে পৃথিবী দেখানোর কী যন্ত্রণা।
ক্ষুধার পূর্বেই যে শিশুর খাদ্য হয়ে থাকে রান্না
কে জানে জন্মের পরেই কোন যন্ত্রণায় তার কান্না।


নিশ্চিন্ত শৈশব-কৈশোরে চাওয়াটা হোক যতই সামান্য
যন্ত্রণা অপরিসীম যদি কেউ ভেবে থাকে তা নয় দান্য।
চোখের আড়াল হলে মা - পরম নিশ্চিত আশ্রয়স্থল
কার সাধ্য বোঝে কী যন্ত্রণা প্রকাশ করে দুচোখের জল।


হৃদয়কে বুঝানো আর না বুঝার যে যন্ত্রণা
তাই নিয়ে যৌবনে দুর্বোধ্য অদৃশ্য প্রেমের মন্ত্রণা।
প্রেম-জয়ী হৃদয়ে আনন্দের বন্যা বড়ই ক্ষণস্থায়ী
চাওয়া-পাওয়ার হিসাবের অমিলে মনে হয় সমস্ত পৃথিবীই দায়ী।


তারপর মনে হয় একদিন
সমস্ত চাওয়া-পাওয়ার হিসাব বড়ই অর্থহীন।
কে কবে চলে যায় চেনা নদীর অজানা ওপারে, হয় তাই প্রতিদিন শোনা
আর স্মৃতির যন্ত্রণায় বসে বসে নিজ বুকে ঘড়িটার টিকটিক গোনা।