কবিতা পড়ে যোদ্ধা, কবিতা পড়ে প্রেমিক এবং প্রেমিকা
কবিতা পড়ে অতি আবেগী দেশ সেবক ও সেবিকা।
প্রতিবাদ-মুখর কবিতা কখনও চায় না দেশের রাজা
স্তুতি যত হোক, বিদ্রোহ হলেই কবি পাবে ঠিক সাজা।

সংসারে যারা লাভ ও ক্ষতির হিসাবে কঠোর যোদ্ধা
তারা কবি নয় - সমাজে তারা সভ্য, ভব্য ও বোদ্ধা।
সময়ে কবিতার স্তাবক হলেও কবিদের ভাবে পাগল
ভাবে, অল্প ঘাস ও পাতায় খুশি রয় এ সকল ছাগল।

তাই তো তারা মাঝে মধ্যেই ছড়ায় পাতা ও ঘাস
তাতেও তারা স্তুতি না পেলে ছড়ায় তখন ত্রাস।
ঘাসে ও ত্রাসে কিছু কবি তাই লিখে যায় শুধু স্তুতি
সেই সব পাঠে কবিতা পাঠকের মরে যায় অনুভূতি।

যখন সমাজে প্রেমিক-প্রেমিকা-যোদ্ধার বড় অভাব
দেশ সেবক ও সেবিকা নেই - ব্যবসা বাণিজ্যে স্বভাব,
পাঠক বিনে আসল কবির জ্বলে যায় লাল বাতি
স্তুতি-স্তাবকে ছাগলেরা তখন কবি হয় রাতারাতি।

আসল কবির লাশ পড়ে থাকে, রাতে হওয়া কবি-কতক
কবিতার লাশ খাটিয়ায় তুলে, কাঁধ-ব্যাগে ভরে পদক।