ব্যাথার বৈভব


এখনো যে ইশ্ক জ্বলে দগ্ধ বুকে, তুমি যা দেখোনা
শুনলেনা শালিকের বাঁশের পাতার ভিড়ে হা-হুতাশ
তুমি রূপের নিরিখে দেখো, কেউ দেখে প্রাপ্তির দাস
আমার তৃষার প্রতিউত্তর নির্বিশেষে – না না না
ভিড়াও ভিড়াও ঝরি সমতটে বিখন্ড আফসানা
সম্মুখে কর্ষিত মাঠে সবুজের হয়ে গেছে চাষ
যদিও আছে কিছু সাজানো-মাখানো পাতার সন্ত্রাস
তুমি এলে হেথা বটমূলে সকলেই হবে আটখানা


রূপের ভেল্কি তোমার রবিরে ম্লান করা নির্ঘাত
অন্তরঙ্গে তুমি রক্তচোষা তৃষার্ত বাদূড়ী
তুমি মানছোনা বলে মানছিনা আমরাও পরাভব
চিন্তার ভোগ্য মূল্যে সমারোহে যায় যায় জাত
রক্তলেখায় তুমি কলন্দর বঙ্গসুন্দরী
আমিও দেখতে চাই সাঁতরে-হাতড়ে ব্যাথার বৈভব


(প্যাট্রার্কান সনেটঃ ABBAABBA CDECDE)