ছাই ভেবে যখন উড়িয়ে দেবো প্রেম,
সার্থকতার শিখরে নিজেকে তুলনায়
আনবো তখন। কিন্তু কোনো ভাবেই হচ্ছে না যোনো।
এই প্রেমই একদিন দিবেদন করেছো
তোমার মুক্তির পতাকা অবনমন করে।


নতজানু হয়ে বলেছিলে আমার প্রেম চাই,
আমি ভালোবাসার কাঙ্গাল।
মুক্তির মোহ ছুড়েছিলে আবর্জনার স্তুপে।
কতোবার যেনো মাটি ছুঁয়েছে তোমার অশ্রুজল,
কতোবার যোনো নতজানু হয়েছে তোমার মুক্তি নিশান,
সব অতীত, সব ভুল কথা ছিলো ?


প্রকৃতির হে সদস্যবৃন্দ!
তোমরা তো জানো,
আমি কাঙ্গাল ছিলাম না কারো করুণায়
কারো ভালোবাসা কিবা প্রেমময় নিবেদনে,
আজ আমি উল্টো পথের পথিক।
কর্দমাক্ত পথে হেঁটে হেঁটেই
গন্তব্য খুঁজে ফিরছি তমশায়, মরিচীকাময় প্রান্তরে।


নীলিমার কোলে হারিয়েছি অতীত
আশাহত মন ভেঙ্গে চুড়ে মেঘাচ্ছন্ন দুপুরে, ঘুরপাক
খেয়ে ফিরছে স্বপ্নে বিমোহীত সময়গুলো।
মুগ্ধতার পরশ আর চাইনে,
চাইনে অবাঞ্চিত পথে হেঁটে
কুঞ্চিত হতে, কুন্ঠিত না হোক
আর ভালোবাসার উন্মুক্ত দোর।


পেরেছি আমার প্রেমের অনন্ত তৃষা মেটাতে,
ভালোবাসার উপেক্ষায় সিক্ত করেছি আমার জীবন
পূর্ণতা পেয়েছে আমার পাওয়ায়।
ধন্য জীবন আমার, ধন্য।