ধরো কোন কুয়াশা ভেজা ভোরে, তুমি আমি হাঁটছি আঁকাবাঁকা পথ ধরে, আকাশের স্তব্ধ নীলিমায় মিশে গেছি যেনো মেঘেদের দূর দেশান্তরে,


বিড়ালের মত পায়ে হেটে হেটে–আলতো ছন্দে বেগুনি শাড়ীর আঁচল দিয়েছো ঢেকে, শত জন্ম তাকিয়ে থেকে তোমার পানে–তারপর যেন মৃত্যু এলে তুমি আঙুল ধরে ডানা মেলে দিও তেপান্তরে?


ফিঙে পাখি হয়ে উড়ে বেড়াবো দুজনে, পথ ঘাট ভুলে যাবো খেলার ছন্দে, বিকেলের রোদে একটু রাগ গায়ে মেখে নিলেও মন্দ হয়না, রাতটুকু না হয় আমার কাঁধে মাথা রেখেই ঘুমিও– আমাদের ছোট্ট নক্ষত্রের ঘরে।