উগ্র বর্বরতার মদনাঘ্রাণ এসে
বাড়ি খায় নাকেমুখে ......
সময়ের আকাশে ওড়ে নগ্নতার ঘুড়ি
উলঙ্গ সভ্যতার গা চাটে নেড়িকুত্তা।


মানবিকতা এখন ফ্যাসানের তুঙ্গে..
গ্রাম থেকে শহর প্রতিটি জনপদে ছুটছে
যৌনাবেদনময় আধুনিকতা.....
ঘটাকরে মঞ্চে মঞ্চে নৈতিকতার স্খলন।


ভোরেরও অনেক আগে বাসি হয়ে ঝরে পড়ে সকালের ফুল......
আহত পাখির মতো কুমারি রক্তে তাজা লাল পাপড়ি।


রক্তাক্ত আর্তনাদে কাঁদে মানচিত্র....
বেশরম রাতের শকুন খাবলে খায় সতীত্বের কুঁড়িকোমল।


পদ্মা- মেঘনা-যমুনা আজ দূষিতা.....
অদৃশ্য দৈত্যের বলাৎকারে সোমগন্ধা এখন কামগন্ধা।


সম্ভ্রমহানির ভয়ে সন্ত্রস্ত বর্ণমালা...
যদিও এখনো টিকে আছে মলাটের আবডালে বইয়ের পাতাগুলো.....
সেখানেও চলছে কলম-ধর্ষণ।


কুলুপ আঁটানো, এ সমাজ মুখ খোলেনা- অস্পৃশ্য হওয়ার ভয়ে।।


তাং-১৮/০৫/২০১৭