দেখিনি বায়ান্ন,হয়নি দেখা একাত্তর
অনুভবে চির অম্লান বায়ান্ন'র একুশে।
চির জাগ্রত সংগ্রামী চেতনার একাত্তর
দিয়েছ স্বাধীন সত্তা।
বিশ্ব মানচিত্রে নূতন এক দেশ
সে-তো আমার সোনার বাংলাদেশ।


পাক হানাদারের হিংস্র থাবাই
ঝাঁঝরা তোমার বুক।
বীর দর্পে করছে বিচরণ,মাগো
হায়েনার দোসর তোমারই কুলাঙ্গার সন্তান।


ধমনী চেরা ফিনকি রক্তে রঞ্জিত মা
তোমার দেহখানি।  
মা- মাটি ব্যথিত করে না
রক্তপিপাসু ঐ পাপিষ্ঠেদের অন্তর।


শাসক শোষকের ছত্র ছায়ায়,করে বিচরণ
স্মাগলার, সিন্ডিকেট আর অনৈতিকতায়
গড়েছে সম্পদের পাহাড়।
কিশোর গ্যাং এ-র পৃষ্ঠপোষক,নিয়ন্ত্রণে শাসক
তরুণ তরুণীর অবক্ষয়ে,জোগায় শুধু রসদ।
চোরা কারবারি, মজুদদারি সাথে সিন্ডিকেট
নিত্য নতুন কারসাজিতে সে হায়েনার দল।


অন্তরে মা চলছে দহন,তোমার উদারতায়
কেমনে তুমি করেছ লালন-নরপশু পিশাচ।
অনৈতিকতা,অসততা ছড়িয়ে দিচ্ছে তোমায়
তোমার সন্তান বেড়ে উঠছে মাগো
অমানবিক, অসাম্প্রদায়িকতায়।


স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী, সুবর্ণ জয়ন্তী
পালিত-বহু আনুষ্ঠানিকতায়।
উন্নয়নশীল দেশ তুমি  মা
আনন্দে আত্মহারা।