=
ঘুমু-তে চাই-না, আমি আর-
এই পৃথিবী-তে এক মূহুর্ত, এক-টি লগ্ন৷
যা- ঘুম দিয়েছি, আর- নয়৷
ঘুমে'র জন্যে, আর- আফসোস নয়৷
ঘুমে'র কাতরতা, আর- নেই আমার৷
আমি-তো জেগে থাকতে'ই চাই৷
জেগে থাকতে, ভালোবাসবো- সর্বোচ্চ সময়৷
শেষ পর্যন্ত এমন-কি এক শতাব্দীও নয়,
একশ কিংবা- এক সহস্র অবধি- ধরেও নয়,
অ-ফুরন্ত রজনী পর্যন্ত৷
যে পর্যন্ত দিন ও রাত পরস্পর-
মিলে মিশে, একাকার হয়ে গেছে৷
আমি জেগে থাকতে চাই, অন্ত-সীমা'র পরেও৷
কারণ-
আমি কবিতা' লিখতে চাই,
কবিতা'ই আমার ধ্যান সর্বস্ব৷
কবিতা' আমার কলিজা'র স্পন্দন,
আমার কলবে'র শুভ্রতা৷
ঘুমু-তে গেলে'ই, আমার বড়ো- ভয় হয়, এখন৷
শেষে রাত, যদি আর- শেষ না হয়৷
রাত ফুরোলে, যে- দিনে'র আলোকোজ্জ্বল সমাহার৷
আলো বাদ দিলে, দিনে'র কী- অবশিষ্ট থাকে?
পথ চলতে, কবিতা লিখতে, আলো'র একান্ত প্রয়োজন৷
আমি কবিতা'র জন্যে শুধু-মাত্র কবিতা'র জন্যে'ই,
পৃথিবী'র সপ্তম গলি'র- শেষ কাঁশফুল অবধি- হেঁটে যেতে চাই৷
নেবে কী?
হে যুগান্তরে'র লগ্ন প্রতিক নিরাবরণ৷৷
=
রচনা-কালঃ ২৫/১১/২০১২ইং
=
মার্জিত রূপ- সংস্করণে৷৷
=