=
স্বপ্ন' তার শরীর- অ-গোছানো রেখে'ই
বাথরুমে, ঢুকে পড়ে৷
আমি নিরূপায় জীব- জীবন্ত হলাম,
ভোরে'র কলোরবে৷
মুখে'র রাত্রি যাপনে'র, ক্লেশ ঝারা'র-
এক-টা সূচনা পর্ব-তো থাকে'ই, প্রতি-নিয়ত৷
ভাগ্নে'র আমার কামরা পরি-দর্শন-
অর্থ-হীন শব্দে'র উচ্চারণে৷
আবাসে'র ভেতর- মুখ পর্যন্ত গেলে'ই,
পূণরায়- তার দেখা৷
শীতে'র শীম্পনী-তে, সঞ্চিত কুয়াশা-
মুখ-কে হাঁ করে, ছেড়ে দিয়ে,
বলে- মামা ধুয়া৷
আমি পারি, আপনি পারেন?
আমি তৎক্ষণাৎ সিংহে'র গর্জন- আওয়াজ ব্যতীত,
হাঁক দিয়ে নিঃশেষে, বের করে, দেখালাম- কুয়াশা৷
ও বলে- ধুয়া৷
পার্থক্য বোঝা-তে, বললাম-
ধোঁয়া উৎপাদিত, কুয়াশা প্রকৃতি-গত৷
ধোঁয়া উৎপন্ন থেকে, আপনি'ই উত্থিত হয়৷
আর- কুয়াশা গগণ থেকে, প্রতিত হয়ে,
দিগন্তে'র গা- ঘেষে, দাঁড়িয়ে রয়৷
আর- মানুষে-রা নাক সঞ্চালনে গর্ভে ধরে,
লেপে'র উমে মুখ দিয়ে, তার সন্তান-কে,
প্রসব করে উইন্টারে৷
ও বলে- আমি বেশী৷
আমি ধৌত কার্যে, বেরিয়ে পরি৷
প্রতিযোগীতা'র ভাবনা- এখানে, অ-যৌক্তিক৷
কারণ-
ভাগ্নে'র চারে'র রবি- খসিত, প্রায়৷
আর- আমি মামা'র ছত্রিশে'র দ্বি-প্রহর কার্নিশ৷৷
=
রচনা-কালঃ ২৯/১১/২০১২ইং
=
মার্জিত রূপ- সংস্করণে৷
=