অবোঝ মন কত কী যে চায়
ধর্না দিয়ে তার কতটা বা পায়?
যুগসন্ধি ক্ষণে মিলে যাচনার ধন
হাতে পেয়েও তাই সে হারায়।


মনোবাসনায় কাঙ্ক্ষিত জন;
ছিল যাঞ্চা, ছিল পিত্যেশের ধোঁয়া
কিন্তু আবার সত্য হয়ে এলো যখন
যায়নি তো আর তারে ছোঁয়া।


পরিণতির হিসেব নিকেশ
যখন ছড়ায় সুবাসিত হাওয়া
আঁচ বাঁচিয়ে চলতে তখন
যায় না তারে নিবিড় করে পাওয়া।


যে বিজ্ঞ জহুরী হিসাব বোঝে
পারে না সে নিতে তার সুখ
পেয়েও সে তাই তো হারায়
যার তরে মন ছিল এতকাল উন্মুখ।


গরলে ভরেছে যে শূন্য পেয়ালা
তাতে আর অমৃতের ঠাঁই কোথায়
অমৃতের স্বাদ হয় তো মাধুর্যময়
মরুহৃদয় বোঝে না; কী সুধা সে হারায়?


রিক্ত তাপস এই মানবীয় দুটি হাত
কী করে ছুঁবে আকাশের নীল
যত থাক সেথা অচেনা নীলাম্বর
চোখের বাজুতে থাক তারা ঝিলমিল।