তোমার পতাকার ওই খোলা পাখা
মুক্ত ডানার মত পতপত উড়ে
নিঃসীম আকাশের গায়
পেরেছো কি আজো দিতে পথ পাড়ি
সময় শতাব্দী দেখি চলে যায়!


তোমার আগমন প্রত্যাশায়
তমালের ছায়া দোলে এখনো দখিনায়
স্বর্ণলতার তামাদি অগ্রাসন হয়নি স্তিমিত
ধান খোটা শালিকটা আজো
শিস তোলে বাঁকা ঠোঁট ভঙিমায়।


তোমার পানে চেয়ে চেয়ে হে স্বাধীনতা
প্রগতির চাকা আজো কেন ফেঁসে যায়
মেঠোপথে কেনই সে গড়াগড়ি খায়
নব্য বনিকের কাব্যে গড়ে ষড়যন্ত্রের
সুরম্য প্রাসাদ স্বার্থের কুটিল সীমানায়।


মোরগ ঝুটির খোঁপাটি বেঁধে
এসো ফিরে এই পদ্মা মেঘনার আঙিনায়
দীঘল তনুটি উঠুক আবার হেসে
রাঙিয়ে চরণ দুটি বীত-অনুরাগে
নাহয় এসো বীর বিপ্লবীদের সামিয়ানায়।


অসীম বেদনার নির্লিপ্ত নিশায়
হাপুশে কাঁদে এই মন বারেবার আর
অন্ধ আবেগ যদি স্মৃতি ফিরে পায়
আমার আঙিনা সাজাতে তখন
নাহয় গড়েই নেবো স্মৃতির মিনার।