সেদিন দেখিলাম জীবন যুদ্ধে পরাজিত এক বৃদ্ধকে,
ঝরে গেছে তার পাতা,শাখা প্রশাখা টাও নড়বড়ে!!!
বিবর্ণ এক কালো মুখ নিয়ে চেয়ে থাকে ঊর্ধ্বগগনে,
যেন দুঃখের সাগর শুকিয়েছে যুগ যুগ ধরে নীরবে!!
কেউ তো দেখেনি পতনের কালে কি দৃশ্য জেগেছিলো তার মুখে!!
অামি তো দেখেছি সমাজের চোখে নিষ্প্রাণ  করুণ মূর্তি কেঁদেছিলো যবে,
যার নিসাড় দেহখানি হয়ে গেছে বহু শোষিত মানুষের বাড়ি।
জানিনা অার কতোজন কে ডেকে বলেছিলো সে,
বলতে পারো হে যুবক,ভিক্ষুকে ভিখারী বানিয়েছে কে?
ইতিহাস বলে তার মুখ অবিরত-অবলীলায়,
বহুকাল অাগে বৃক্ষ ছায়া তলে কিছু চারা এলো প্রকৃতির নিয়মে!
জানিনা বড় হতেই কবে অকৃতজ্ঞের ভবে জঙ্গল ছেড়ে পালালো সবে!!!
গভীর তিমির রাত্রি সে বৃক্ষটা দুলছে ভারী!
মৃত্রিকা বলে অামি ফেটে চৌচির,অামারে দেও ছাড়ি!!!
জানিনা কি ছিলো অামার বেড়ে ওঠার চারিধার জুড়ে, অালো বাতাসের অাড়ালে,
কিছু বুনোলতার সাথে জড়িয়ে, অবশেষে হারালাম নিজেকে।