জগতের মহাপুরুষ তুমি হে মহানবী!
হে শেষ বিচারের ক্ষণে নাজাত আবেদনকারী!
হে উম্মতী উম্মতী দ্রোহে অশ্রুস্নাত হৃদয়ের অধিকারী!
হে দিশারী, মোরা তোমার দেখানো পথের অনুসারী।
শয়তানের লক্ষ বাধার পাহাড় ভেদিয়া,
খোদার দয়ার সাগরে ভাসিয়া তোমার উদয় হয়েছিলো,
এই পৃথিবীর বুকে নিঃসন্দেহে মহাজ্ঞানী রূপে।
এক অন্ধকার আচ্ছন্ন যুগ ছেদে নূরানি নক্ষত্র হয়ে জাগিলে ভোরের দিবালকে।
যার পায়ের চিহ্নে হেসেছে মক্কার জমিন!
সেখানে আজো জান্নাতি দোলনা দোলে,
হাওয়ায় হাওয়ায় দুরুদের সুর ভেসে আসে।
পিতা হারা এতিম হয়ে শৈশবে বেড়ে উঠেছিলে মা আমেনার ঘরে,
হে নবী অসীম দরদী হয়ে তুমি এসেছিলে এ ভবে।
তোমার সততায় সবে  হয়েছিলো হতবাক!
তোমার জীবনী পড়িতে পড়িতে মরিতে চাই আমি!!