কবির অমর পঙক্তিমালা জ্বালিয়েছিল দ্রোহের আগুন
সে আগুন নেচে উঠল প্রতিটি শিরায় রক্ত কণায়
সৃষ্টির অমোঘ টান মন্থিত হল স্নায়ুর প্রতিটি তন্ত্রীতে ।
একটি মানচিত্র আঁকবে বলে
রংতুলি হাতে নিল মাটির পরিচর্যায় বেড়ে ওঠা সাহসী সন্তানেরা
ষোলতে পা দেয়া এক টগবগে তরুণ তার মা’র বুকে মাথা রেখে বলল-
আমি ফিরে না এলে দু:খ করো না ,এ শ্যামল প্রান্তরে চেয়ে থেকো
সেখানেই খুঁজে পাবে আমার অস্থিত্ব ।


এক জন চিত্রকর তার প্রিয়তমার চোখে চোখ রেখে বলল-
শিল্প ও শিল্পীর মৃত্যু নেই , সুন্দরের সাথেই তার বসবাস ।
একজন অনাগত সন্তানের পিতা আবেগাপ্লুত কন্ঠে তার স্ত্রীকে বলল –
সন্তানের সাথে দেখা না হলে তাকে বলো-
গুচ্ছ গুচ্ছ পলাশ আর কৃষ্ণচূড়ার আবিরে মিশে আছে তার পিতা ।
সেখানেই খুঁজে পাবে পিতার গন্ধ ।


অতঃপর তুলির নিখুঁত আঁচরে বুকের রক্তে আঁকা হল এক মানচিত্র;
জন্ম নিল এক দেশ তার নাম বাংলাদেশ ।