মহাকাব্যের এক উপাখ্যান
জন মানসে পেয়েছে স্থান।
সত্যতা নিয়ে অবগত নই
নিজেও বিষয় সংশয়ে রই।
তবু বলি সেই শোনা কথা
‘ভীমপুল’ নামের যথার্থতা।
‘পাণ্ডবদের মহাপ্রস্থান’-পথে  
দ্রৌপদী ছিলেন সাথে সাথে।  
পথে দেখা সাগর-অভিযাত্রী
নিত্য-বহ এক নদী সরস্বতী।
'কুমারী সেই আদিম কালে
পাণ্ডবদের গতিপথ আগলে
কিসের অভিলাষে শুয়েছিল'
জানা নেই কাকে বলেছিল।  
পাণ্ডবরা পেরলেন সরস্বতী
রহিলেন শুধু অবলা সতী।
কী করবেন রমণী দ্রৌপদী?    
পথ সন্ধান করেন নিরবধি।
সরস্বতীর দুই ধারে পাহাড়
তাদের জুড়বার সাধ্য কার?
দ্রৌপদী করেন ভীমের স্তুতি
ভীম একা এলেন-জনশ্রুতি।
ভীম শক্তিতে ছিলেন দুর্বার
বহিলেন বিরাট প্রস্তের ভার,
ফেললেন সেটিকে অবশেষে
সরস্বতী নদীর তীরে এসে।
প্রস্তরটি জুড়লো দুই পাহাড়
‘ভীমপুল’-নাম সে’সেতুটার।
এই সেতুটিকে দেখতে পাবে
ভারত ও তির্বতের সীমান্তে।
সড়ক খুঁজে পেলেন দ্রৌপদী
মহাপ্রস্থানে চললেন নিরবধি।